• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    শেখ মারুফই পারবেন যুবলীগকে ইতিবাচক ধারায় ফেরাতে

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৭:২৪ পূর্বাহ্ণ

    শেখ মারুফই পারবেন যুবলীগকে ইতিবাচক ধারায় ফেরাতে

    সাম্প্রতিক সময় আওয়ামী লীগের শুদ্ধি অভিযানে সবচেয়ে বেশি সমালোচিত হয়েছে যুবলীগ। এখন পর্যন্ত যারা আটক হয়েছেন তাদের সকলের সঙ্গে যুবলীগের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই বলেছেন, আওয়ামী যুবলীগের কিছু মনস্টার (দানব) তৈরী হয়েছে। যারা ছাত্রলীগের চেয়েও খারাপ।


    এই বাস্তবতায় অনিবার্য হয়ে উঠেছে যুবলীগের নেতৃত্বের পরিবর্তন হবে। যদিও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার আগে যুবলীগ চেয়ারম্যানের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করেছেন। তবে এই বৈঠকে যুবলীগের কাউন্সিল বা নেতৃত্ব পরিবর্তন করার বিষয় কোন কথা বলেননি। ধারণা করা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্ক থেকে ফিরে এসে যুবলীগের দিনক্ষণ চুড়ান্ত করবেন। অসমর্থিত সূত্রগুলো বলছে, প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার আগে একাধিক প্রাক্তন যুবলীগ নেতা এবং আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ নেতার সঙ্গে যুবলীগের ভবিষ্যত নিয়ে কথা বলেছেন। এসব আলাপচারিতায় যুবলীগের নতুন সম্মেলনের বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছে। আওয়ামী লীগের একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা বলেছেন, ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন যে, ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে আওয়ামী লীগের অঙ্গ সহযোগি সকল সংগঠনের যেসব মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি রয়েছে সেসব কমিটির সম্মেলন শেষ করতে হবে। সে হিসেবে যুবলীগের কমিটিও মেয়াদ উত্তীর্ণ। তাই ধরে নেওয়া হচ্ছে, ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে অন্যান্য অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের মত যুবলীগেরও সম্মেলন করতে হবে।


    তবে যুবলীগের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে। যুবলীগের বিরুদ্ধে যে ক্যাসিনো টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে তা একটা নতুন সম্মেলন বা নতুন নেতৃত্বের মাধ্যমে পাল্টে ফেলাই একটা বড় চ্যালেঞ্জ। এজন্যই কাউন্সিলের মাধ্যমে যুবলীগের বর্তমান নেতৃত্বকে সরিয়ে নতুন নেতৃত্ব দেওয়ার বিষয়টি প্রাধান্য পাচ্ছে। এমনিতেই আওয়ামী যুবলীগের বর্তমান চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী ১০ বছর ধরে যুবলীগের নেতৃত্বে রয়েছে। দলের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদও দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্ব পালন করছেন। বর্তমান কেলেঙ্কারির ঘটনা প্রকাশিত না হলেও যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হত। ওমর ফারুক চৌধুরি নিজেই জানিয়েছিলেন যে, সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি যুবলীগের নেতৃত্ব কারো হাতে তুলে দিতে চান। কিন্তু প্রশ্ন হলো কে হবেন যুবলীগের নেতা?

    জানা গেছে, এখন যখন যুবলীগের নানা কেলেঙ্কারির ঘটনা আলোচিত হচ্ছে। পাশাপাশি যুবলীগের নতুন নেতৃত্বের বিষয়টিও সামনে চলে আসছে। একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, শেখ ফজলুল করিম সেলিমের ছোট ভাই যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ মারুফের নাম আলোচনায় রয়েছে। শেখ মারুফ নিজেও যুবলীগের চেয়ারম্যান হতে আগ্রহী বলে একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে।

    শেখ মারুফ হচ্ছেন যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনি ও সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের ছোট ভাই। তিনি এখন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। শেখ মারুফের এক ভাই শেখ ফজলুল হক মনি যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা। আরেক ভাই শেখ ফজলুল করিম সেলিম যুবলীগের প্রাণ দাতা। মানে তিনিই সারাদেশে যুবলীগকে সংগঠিত করেছেন। বড় দুই ভাইয়ের মতো শেখ মারুফের হাতে যুবলীগের দায়িত্ব আসলে তিনিও সারাদেশ ব্যাপী যুবলীগকে সংগঠিত করতে পারবেন।

    এছাড়া চমক হিসেবে নাম আসছে শেখ ফজলে নূর তাপসের নামও। তিনি যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনির ছেলে। তাকে চেয়ারম্যান বিবেচনা করতে গেলে আবেগই সবচেয়ে বড় কারণ বলে জানা গেছে। তবে তাপস যুবলীগের চেয়ারম্যান হতে কতটা প্রস্তুত বা আগ্রহী সে প্রশ্ন রয়ে গেছে। ব্যস্ত আইনজীবি হিসেবে তিনি দলের কার্যক্রমেই সময় দিতে পারেন না। তারপরে আওয়ামী লীগের সবচেয়ে সংগঠিত অঙ্গ সংগঠনের দায়িত্ব নেওয়ার মতো তার প্রস্তৃতি রয়েছে কিনা সে প্রশ্ন থেকেই যায়।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673