• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ‘শয়তানের রূপ’ নিতে নিজের নাক কেটে ফেললেন এই ব্যক্তি!

    | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০:২৯ পূর্বাহ্ণ

    ‘শয়তানের রূপ’ নিতে নিজের নাক কেটে ফেললেন এই ব্যক্তি!

    অনেকেই আছেন যারা নিজের রূপে সন্তুষ্ট থাকতে না পেরে, নিজেকে বিভিন্ন ভাবে সাজিয়ে তোলেন। তা করতে গিয়ে কিছু মানুষ এমন কাজ করেন, যার জেরে তাদের দেখতে আরও অদ্ভুত লাগে। পছন্দসই রূপ পেতে দেহের বিভিন্ন অঙ্গের বদল ঘটাতেও পিছপা হন না তারা। সম্প্রতি এমনই কাণ্ড করেছে ব্রাজিলের এক ব্যক্তি, যা নিয়ে আলোচনায় মেতেছেন নেটিজেনরা।


    ব্রাজিলের বাসিন্দা মিকেল ফারো দো প্রাদো। ৪৪ বছরের এই ব্যক্তি নিজেকে বিদঘুটে সাজে তুলে ধরতে পছন্দ করেন। নিজের অঙ্গপ্রত্যঙ্গের পরিবর্তন করতেও ভালবাসেন তিনি। প্রাদোর সাজের সাক্ষ্য বহন করছে তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট। সারা মুখে ট্যাটু ছাড়াও চুলের বিভিন্ন পরিবর্তন, দাঁত পাল্টে ফেলা, মুখমণ্ডলের বিভিন্ন অংশে ছিদ্র ও কৃত্রিম শিং— এসব আগেই করেছিলেন তিনি। সম্প্রতি নিজের চেহারা বদল ঘটাতে নাকের একাংশ কেটে বাদ দিয়েছেন। তা দেখেই চমকে গিয়েছেন নেটিজেনরা।


    অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে নাকের সামনের অংশ কেটে বাদ দিয়েছেন তিনি। তার ‘শয়তানি রূপ’ আরও জোরদার করতেই এই কাজ করেছেন বলে জানিয়েছেন। তার স্ত্রীর দাবি,প্রাদো হলেন বিশ্বের তৃতীয় ব্যক্তি যিনি এই কাজ করলেন।
    জানা গেছে, প্রাদো একজন ট্যাটু শিল্পী। তিনি দাবি করেন, তার যন্ত্রণা সহ্য করার শক্তি প্রবল। তাই ট্যাটু বা এই সব পরিবর্তন করতে তার নাকি কোনও অসুবিধা হয় না। তবে প্রাদোই একমাত্র নয়, যিনি লুকস বদলাতে নিজের অঙ্গ কেটে বাদ দিলেন।

    এর আগে জার্মানির স্যান্ড্রো নামের এক ব্যক্তি নিজের দুই কান কেটে বাদ দিয়েছেন। কান ছাড়াও তার জিভ, হাতের মতো অংশে এমন পরিবর্তন করেছেন, যা নজর কেড়েছিল নেটিজেনদের।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিয়ে করাই তার নেশা!

    ২১ জুলাই ২০১৭

    কে এই নারী, তার বাবা কে?

    ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669