বুধবার ৪ঠা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংসদে আজহারী-তারেক মনোয়ারকে নিয়ে আলোচনা

ডেস্ক   |   মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০ | প্রিন্ট  

সংসদে আজহারী-তারেক মনোয়ারকে নিয়ে আলোচনা

মিজানুর রহমান আজহারী ও তারেক মনোয়ার যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর পক্ষ নিয়ে ওয়াজ মাহফিল করায় সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে। বিষয়টি উত্থাপন করেছেন সংসদ সদস্য মো. শফিকুর রহমান।
বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) রাতে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনিত ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে মো. শফিকুর রহমান আজহারী ও মনোয়ারের ওয়াজ নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
পরে সভাপতির চেয়ারে বসা ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, ‘দেলোয়ার হোসেন সাঈদ নিয়ে যেসব গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য আসছে এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।’
শফিকুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, ‘দেলোয়ার হোসেন সাঈদী রাজাকার ছিলেন। আদালতে তার বিচার হয়েছে এবং বিচারে সে শাস্তিও ভোগ করছে। এখন মিজানুর রহমান আজহারী ও তারেক মনোয়ার নামের দুইজন ওয়াজ মাহফিল করে বলছেন, ঘরে ঘরে দেলোার হোসেন সাঈদী বেরিয়ে আসবে। শুধু তাই নয়। এদের মধ্যে একজন বলছে এখন আর তীর ধনুকের যুগ নেই, এখন একে ফোরটি সেভেনের যুগ। এটি প্রচ্ছন্ন নয়, প্রকাশ্যে হুমকি।’
তিনি আরও বলেন, ‘এই ধরনের জামাত-শিবির রাজাকার এত তৎপর হয়ে গেছে যে, তাদের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়ে যায়, বিল্ডিং হয়ে যায়। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধাদের নামের প্রতিষ্ঠান হয় না। আমার বন্ধ শহীদ জাবেদের নামে হাইস্কুল আছে, সেই স্কুলে বিল্ডিং হয়নি।’ পরে ডেপুটি স্পিকার বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাই।’
জিয়াউর রহমানের শহীদ বির্তক নিয়ে তিনি বলেন, ‘জিয়া কোথায় যুদ্ধ করেছে? একটা জায়গা দেখাক। শুধু ষড়যন্ত্র করেছে মোস্তাকের নেতৃত্বে। শেষের দিকে মুজিবনগর সরকারের কাছে ষড়যন্ত্র ধরা পড়ার পর মোস্তাককে মন্ত্রিত্ব থেকে বাদ দিয়েছেন। আর জিয়াউর রহমানকে ইনঅ্যাকটিভ করে রেখেছিলেন। এটিই হচ্ছে বাংলাদেশের সত্যিকার ইতিহাস।

Facebook Comments Box


Posted ৮:২৫ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১