• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    সাংবাদিক হত্যাচেষ্টা মামলার এক বছর, কোনো অগ্রগতি নেই

    রাবি প্রতিনিধি | ১০ জুলাই ২০১৮ | ৬:৫৪ অপরাহ্ণ

    সাংবাদিক হত্যাচেষ্টা মামলার এক বছর, কোনো অগ্রগতি নেই

    পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সাংবাদিক আরাফাত রাহমানের ওপর ছাত্রলীগের হামলার এক বছর পেরোলেও ঘটনার মামলায় দৃশ্যমান কোন অগ্রগতি হয়নি। এখনও চার্জশিট দিতে পারেনি পুলিশ। হামলায় অংশ নেয়া রাবি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিলেও এখনও কোন ব্যবস্থা নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
    মামলার আসামীদের দ্রুত শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার (১০ জুলাই) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন করেছে ক্যাম্পাসে কর্মরত সাংবাদিকরা।


    আরাফাতের ওপর ছাত্রলীগের হামলার ঘটনার এক বছর পূর্ণ হলেও এখনও কোন বিচার পাইনি। সে সময় আরাফাতের ওপর যেসব ছাত্রলীগ নেতারা হামলা চালিয়েছিল তাদের কাউকে গ্রেপ্তার করেনি। এমনকি তদন্ত প্রতিবেদন পর্যন্ত আদালতে দাখিল করেনি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করলেও প্রশাসন তাদের ব্যাপারে নিরব ভূমিকা পালন করছে। মানববন্ধনে রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি শিহাবুল ইসলাম এসব কথা বলেন।


    সংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জাহিদ বলেন, শুধু আরাফাতের ওপর নয় সাম্প্রতিক সময়ে জগন্নাথ এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়েও সাংবাদিকদের ওপর ছাত্রলীগ হামলা চালিয়েছে। সারাদেশে ধারাবাহিকভাবে সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা বেড়েই চলেছে। কিন্তু কোনো ঘটনারই বিচার হচ্ছেনা।

    গত বছরের ১০ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে বাস ভাঙচুরের ছবি তোলায় দি ডেইলি স্টারের রাবি প্রতিনিধি আরাফাত রাহমানের ওপর হামলা করে রাবি শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ওই দিনই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন আরাফাত এবং হামলায় অংশগ্রহণকারী ছাত্রলীগের ৪ নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও ১০ জনকে আসামী করে নগরীর মতিহার থানায় হত্যাচেষ্টা মামলা করা হয়। আরাফাতকে মারধরের ঘটনায় মতিহার থানায় দ-বিধির ৩০৭, ৩২৩ ও ৩২৫ ধারায় মামলাটি রেকর্ড করা হয় বলে তখন জানিয়েছিলেন ওসি হুমায়ুন কবির।

    মামলার আসামীরা হলেন, রাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আহমেদ সজীব, আইনবিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয়, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কানন এবং সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান লাবন। হামলার দিন রাতেই সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় সাইফুল ইসলাম বিজয় ও মাহমুদুর রহমান কাননকে শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় কমিটি। পরে ওই বছর নভেম্বরে ছাত্রলীগের ছাত্রলীগ নেতা কানন এবং চলতি বছর ৪ ফেব্রুয়ারি সাইফুল ইসলাম বিজয়েরও বহিষ্কারাদেশ তুলে নেয় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।
    এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, আমি দায়িত্ব নেয়ার পর এরকম কোন অভিযোগ আসেনি। সম্ভবত আগের প্রক্টরের সময় তা ঘটেছিল। সে সম্পর্কে আমার জানা নেই।
    দায়িত্ব পরিবর্তন হলে নতুন করে আবেদন করতে হয় কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আগের কাগজপত্রগুলো কোথায় আছে জানি না।
    মতিহার থানার তদন্ত কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন বলেন, ভ্ক্তুভোগীর চিকিৎসা প্রতিবেদন হাতে পেয়েছি। মামলার তদন্ত প্রায় শেষের দিকে। আশা করছি এ মাসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে পারব।
    এদিন রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক আলী ইউনুস হৃদয়ের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন সংগঠনটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক হুসাইন মিঠু, প্রচার সম্পাদক আহমেদ ফরিদ, রাবি সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহ-সভাপতি রাশেদ রিন্টু, রাবি প্রেসক্লাবের সভাপতি রবিউল ইসলাম তুষার, সাধারণ সম্পাদক মানিক রায়হান বাপ্পি, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক সোহাগ প্রমুখ।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673