• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    সাভারে বহিরাগতদের হামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নিহত

    আজকের অগ্রবাণী ডেস্ক: | ১০ এপ্রিল ২০১৭ | ১০:২০ অপরাহ্ণ

    সাভারে বহিরাগতদের হামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নিহত

    সাভারে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের সাথে শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম সিফাত হোসেন (২২)। তিনি সিটি ইউনিভার্সিটির (সাভার ক্যাম্পাস) টেক্সটাইল বিভাগের শেষ বর্ষের এবং হাজী মকবুল হোসেন ছাত্রাবাসের একজন শিক্ষার্থী ছিলেন। সোমবার দুপুরে সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের খাগান বাজার এলাকার সিটি ইউনিভার্সিটির সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরো অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে মেরুদন্ডে গুলিবিদ্ধ একই বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসুদেব (২৩) নামে অপর এক শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছে। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাভার এনাম মেডিক্যালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ)তে ভর্তি করা হয়েছে। আহত অন্যান্যদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।


    সিটি ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা জানান, রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইভটিজিং কে কেন্দ্র করে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী শাহেদ হোসেনের সাথে বাপ্পি নামে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের অপর এক শিক্ষার্থীর কথা-কাটাকাটি হয়। অন্যান্য শিক্ষার্থীদের তাৎক্ষণিক হস্তক্ষেপে ঘটনাটি তখন মিমাংসা হয়ে গেলেও বাপ্পি নিজেকে আশুলিয়া ইউনিয়নের ছাত্র লীগের নেতা পরিচয় দিয়ে শাহেদকে শাসিয়ে যায়। এর পর সোমবার দুপুরে ১৫ থেকে থেকে ২০টি মোটরসাইকেল যোগে একদল বহিরাগত বিশ্ববিদ্যালয়টির সামনে এসে অবস্থান নেয়। খর পেয়ে শাহেদের পক্ষের কয়েকজন শিক্ষার্থীসহ আরো কয়েকজন সাধারণ শিক্ষার্থী বিশ্বিবিদ্যালয় থেকে বের হয়ে বহিরাগতদের সাথে কথা বলতে থাকে। কথা-বার্তার এক পর্যায়ে বহিরাগতরা কেউ কিছু বুঝে না ওঠার আগেই শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ও গুলি চালায়। তারা এলোপাতাড়িভাবে গুলি ছুড়লে সিফাত ও বাসুদেব গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এসময় আরো ৩/৪ জন ধারালো অস্ত্রে আঘাতে আহত হয়। অন্য শিক্ষার্থীরা বহিরাগতদের ধাওয়া করলে তারা গুলি ছুড়তে ছুড়তে পালিয়ে যায়। এসময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা তিনটি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে। অন্য শিক্ষার্থীরা গুলিবিদ্ধ সিফাত ও বাসুদেবকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সিফাতকে মৃত বলে ঘোষণা করেন এবং আশঙ্কাজনক অবস্থায় বাসুদেবকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. মো. এনামুর রহমান।


    তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ইভটিজিং নিয়ে রবিবারের ঘটনাকে কেন্দ্র করেই এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। যারা এ ঘটনার সাথে জড়িত তাদেরকে চিহ্নিত করতে পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ দুই জনকে আটক করেছে। নিহত সিফাতের বাড়ি ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় বলে জানা গেছে।

    এদিকে শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় ফুঁসে উঠে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীরা। ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীর মৃত্যুর খবর তার সহপাঠীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে তারা ক্যাম্পাসের ভেতর থেকে বের হয়ে স্থানীয় সড়কে চলে আসে। পরে তারা সড়কে চলাচলরত বিভিন্ন যানবাহনে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা খাগান বাজার এলাকায় বেশ কয়েকটি দোকান-পাট ভাঙচুর করে।
    এছাড়াও আটকে রাখা দুটি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা চারাবাগ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গিয়ে আরো বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে। পরে তারা আশুলিয়া-কলমা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করলে সাভার মডেল থানা পুলিশ ও র‌্যাব ঘটনাস্থলে পৌঁছে বুঝিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। তবে ব্যর্থ হওয়ায় তারা ধাওয়া ও লাঠিচার্জ করে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে হামলা চালিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় শিক্ষার্থীদের হাতে আটক হওয়া দুই জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এলাকার সব দোকানপাট বন্ধ হয়ে গেছে। ঘটনার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে অবস্থান নিয়েছে। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

    সাভার মডেল থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার নাজমুল হাসান ফিরোজ জানান, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন কোন কর্মকর্তার পদত্যাগসহ স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা শাওনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়েছে। পরবর্তীতে পুলিশের তৎপরতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

    এনাম মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের পরিচালক ডা. আনোয়ারুল কাদের নাজিম বলেন, এনাম মেডিকেল কলেজে এক শিক্ষার্থী মারা গেছে। এছাড়াও গুলিবিদ্ধ অপর শিক্ষার্থীর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

    এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম কামরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনার সাথে জড়িত বহিরাগতদের মধ্যে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়াও এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত সবাইকে আটকের চেষ্টা চলছে। যে কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। নিহত সিফাতের মরদেহটি ময়ণাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4669