• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    সুমাইয়াকে অপহরণের সঠিক তথ্য দিচ্ছেনা সাবিনা

    অনলাইন ডেস্ক | ৩০ এপ্রিল ২০১৭ | ৮:২৯ পূর্বাহ্ণ

    সুমাইয়াকে অপহরণের সঠিক তথ্য দিচ্ছেনা সাবিনা

    অপহরণের ২৪ দিন পর রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর এলাকা থেকে অপহৃত শিশু সুমাইয়াকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বন্দিদশা থেকে উদ্ধার শিশু সুমাইয়াকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। পাঁচ বছরের শিশুটি অপহরণের পর মারধরের শিকার হয়। তার সারা গায়ে আঁচড়ের দাগ রয়েছে।


    গতকাল শনিবার পর্যন্ত সাবিনা ইসলাম ওরফে বৃষ্টি কী কারণে সুমাইয়াকে অপহরণ করেছেন, সে ব্যাপারে সুস্পষ্ট কোনো জবাব দেননি।


    তিনি দাবি করছেন, সুমাইয়াকে তিনি লালন-পালনের জন্য নিয়েছিলেন। তবে লালবাগ ডিভিশনের অতিরিক্ত উপকমিশনার মোহাম্মাদ নাজির আহমেদ বলেন, তাঁরা মনে করেন, সাবিনা মিথ্যা বলছেন। গ্রেপ্তারের পর থেকে তিনি বেশ কিছু তথ্য দিয়েছেন, যাচাই করতে গিয়ে তা ভুয়া প্রমাণিত হয়েছে।

    সুমাইয়ার বাবা জাকির হোসেন বলেন, সুমাইয়াকে সাবিনা লাঠিপেটা করতেন। তার মাথাতেও আঘাত করেছেন। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় দাগ রয়ে গেছে। সুমাইয়া এখনো ভয় পাচ্ছে।

    মো. নাজির আহমেদ বলেন, অপহরণের পর প্রথমে সুমাইয়াকে কেরানীগঞ্জের বামনকীর্তিতে নিয়ে যান সাবিনা। সেখানে তাঁর স্বামীর বন্ধু বিল্লালকে স্বামী পরিচয় দিয়ে বাসা ভাড়া নেন। সপ্তাহ দুয়েক পর সাবিনা সুমাইয়াকে নিয়ে কদমতলীতে তাঁর বাবার বাড়িতে ওঠেন।

    জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা জানতে পারেন, সাবিনা পাঁচ থেকে ছয়বার ভারতে গেছেন এবং একবার ভারতে গিয়ে এক বছরেরও বেশি সময় ছিলেন।সাবিনা দাবি করেছেন, তিনি তাঁর ফুফুর সঙ্গে ভারতে যান এবং চোরাই পথে সালোয়ার-কামিজ এনে বাংলাদেশে বিক্রি করেন। তবে তিনি ফুফুর বাড়ির যে ঠিকানা দিয়েছেন, সে ঠিকানায় গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি।

    সাবিনা ইসলামের স্বামীর নাম কাজল। তিনি ইয়াবা বিক্রেতা এবং মাদকের মামলায় এখন কারাগারে আছেন। সাবিনাও কোনো পাচারকারী চক্রের সঙ্গে জড়িত কিনা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

    ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসির সমন্বয়কারী বিলকিস বেগম বলেন, আজ শিশুর শারীরিক পরীক্ষা করা হবে।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673