• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    স্বপ্নের মায়াজাল

    রিমন পাঠান | ০৫ জুলাই ২০১৭ | ৭:৪৯ অপরাহ্ণ

    স্বপ্নের মায়াজাল

    পদ্মার পাড় সুনসান নিরব প্রকৃতি। সাথে কিছু যাযাবর পাখি, আসমানের হৃদয় জুড়ে কালো কেশের আভা, পরন্ত বিকেলে লুকিয়ে লুকিয়ে সূর্য ও জলের ভালোবাসা আর সাদা ধবধবে লক্ষ-কোটি কাশফুল। বেশ ভালো লাগছিল, পদ্মার পাড় ধরে শুকনো বালুর বুক চিরে হেটে চলেছি আমি। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা, অনেক সময় পার হয়ে গেলো, পদ্মার পাড় এখন কোলাহল মুক্ত পরিবেশ।
    অতীতের কোন স্মৃতিইই এখন আর মনে করতে পারছিনা, মনের মাঝে জানার আকাঙ্ক্ষা বুঝি হারিয়ে ফেলেছি অজানা কোন পথে, মনে হয় আমি নতুন এক পৃথিবীতে এলাম। সারি বাধা ছোট-ছোট কিছু মাছ ধরার নৌকায় জ্বলছে হ্যারিকেন, বেশ ভালোই কাটছিল সময়। ঠিকানা হীন মানুষের মতো হেটে চলেছি অবিরাম, গন্তব্য জানা নেই, যাকে এক কথায় যাযাবর বলে।
    এমন সময় আমার থেকে কিছুটা দূরে নিরব কাশফুলের ঝোপটা সামান্য নড়েচড়ে উঠলো। আমি কিছুটা অবাক হলাম, এবং জানতে চাইলাম কি থাকতে পারে এই নির্জন পরিবেশে….? ৬-৭ পা এগিয়ে যেতেইই ২০-২১ বছরের একটি মেয়ে অতর্কিত ভাবে আমার মুখোমুখি অবস্থান নিলো, আমি কিছুতেই এ ধরণের দৃশ্যপট দেখার জন্য প্রস্তুত ছিলাম না।
    অবশেষে যাই হোক………., সে আমার অনেক্ষন অবিরত তাকিয়ে রইলো……….আমিও……….কোন কথা নেই।
    আমি শুধু তার মায়াবী দুটি চোখের দিকে তাকিয়ে আছি, যতক্ষণ দৃষ্টি বিনিময় হলো একটি বারের জন্যও আমার চোখের পলক পড়েনি।
    মাথা থেকে পা পর্যন্ত একবার ভালো করে দেখলাম…………। পরনে তার সালোয়ার কামিজ, শরিরে নোংরা কাঁদা, চোখের নিচে কালো দাগ, তাকে দেখলে মনে হয় সে বেশিরভাগ সময় পানিতেই বসবাস করে, এক কথায় জলচর প্রানি।
    এখন গল্পে ফিরে যাই:- ৩-৪ মিনিট হতে চললো আমি কথা বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি, তার কাছে যে যাব সেই শক্তিও হারিয়ে ফেলেছি মনের অজান্তেই।
    কিছু সময় পরে মেয়েটি নিজে থেকেই আমার কাছে এসে আমায় আলতো ছোঁয়ায় জড়িয়ে ধরলো, মনে হচ্ছিল আমি আবার নতুন করে প্রানের সন্ধান পেয়েছি।
    পরিশেষে সন্ধ্যা হয়ে যাচ্ছে বাড়ি ফেরার তাড়া, কিন্তু কিছুতেই সে আমার তর্জনী আঙ্গুল ছাড়তে ছাইছিল না, কিছুটা তোড়জোড় করলাম। মেয়েটি আমার চোখের দিকে তাকিয়ে বললো:- নিলয় তুমি কেমন আছো….? আমি ক্ষনেকের জন্য বাকরুদ্ধ হয়ে গেলাম। ভালো আছি বলবো নাকি ভালো নেই কিংবা তুমি কেমন আছো….? কিছুই বলতে পারছিনা। তার কথার সঠিক কোন জবাব না দিয়েই অবান্তর প্রশ্নের তীর ছুড়ে দিলাম তার দিকে:-
    কে তুমি….? কি'ই বা তোমার পরিচয়….? ইত্যাদি।
    নিলাঞ্জনা: আমি তোমার সেই প্রিয়তমা, যে কিনা পিনাক-৬ লঞ্চ ডুবে হারিয়ে গিয়েছিল পদ্মার গহিন জলে। নিলয়: কি বলো এই সব, তোমার এই অদ্ভুতুড়ে কথাবার্তা আমায় বিষন্নতার মাঝে নিক্ষেপ করছে। নিলাঞ্জনা: এখনো আমায় চিনতে পারনি….? আমি সেই নিলাঞ্জনা, যাকে ভালোবেসে সুচোনা বলে ডাকতে (আরো অনেক কিছু বলে আমার স্মৃতি ফিরিয়ে আনার ব্যর্থ চেষ্টা চালিয়েছে বারবার, তবুও স্মৃতিরা জানালা খুলে একটি বারের জন্যও উকি দেয়নি।


    সন্ধ্যা ঘনিয়ে এসেছে, সময় অতিবাহিত হয়ে যাচ্ছে। আমি বাড়ি ফিরে আসবো কিন্তু সে আমার সাথে যেতে চায়। আমি যাকে চিনিনা, যার সম্পর্কে কোন ধারণাই আমার নেই তাকে কি করে বাড়ি নিয়ে আসি….? সে আমার হাত আঁকড়ে আছে, কিছুতেই তাকে বোঝানো যাচ্ছিল না। হাজার অনুনয় বিনয়ের পরেও তাকে আমার সাথে কিছুতেই আনবো না। এটাই আমি মনে মনে ঠিক করে ফেলেছি, একটা পর্যায়ে আমি খুব বিরক্তি বোধ করছিলাম।
    সজোরে হাত ছাড়াতে গিয়ে সে পানিতে পড়ে যায়, তখন আমার কঠোর মনে কেন জানি তাকে বাচানোর ইচ্ছা জাগেনি।
    আমি রাগান্বিত মেজাজে হাটতে হাটতে অনেক দূর অতিবাহিত করলাম, মনের জোরে পেছনে ফিরে তাকাই, দেখি সে পদ্মার বুকে হাবুডুবু খাচ্ছে।
    তখনো আমার হৃদয়ে কোন প্রকার অনুশোচনা জন্ম নেয়নি। আবার নিজের গন্তব্যে দিকে হাটছি, পেছন থেকে সে ক্রন্দনরত কণ্ঠস্বর বলছে:- নিলয় আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসতাম, ভালোবাসি আর ভালোবেসে যাব। তুমি চলে এসো আমার কাছে, আমরা দু-জনে পদ্মার অতল জলে ঘর বাধবো।
    দেখবে তখন আমাদের দিন অনেক ভালো করেই কাটবে, সারাক্ষণ খুনসুটি’তেই মেতে থাকবো, ইত্যাদি।

    ajkerograbani.com

    পরিশেষে সব কিছুই নিরব-নিস্তব্ধ হয়ে গেলো, কোন কথা নেই, এমনকি দ্বিতীয় বারের জন্যও তার দেখা পেলাম না। আমার ধারণা সে পদ্মার বুকে বিলীন হয়ে গেছে, তখন আমার বুকের বাম পাশে একটু ব্যথা অনুভব করলাম।

    আচমকা আমার গভীর ঘুম ভেঙ্গে গেলো, ঘড়ির কাটায় ঠিক ভোর ০৪:২১ মিনিট। কি করবো ভেবে পাচ্ছিনা, বেড সাইড টেবিলে রাখা পানির জগ আর গ্লাসটা নিয়ে এক গ্লাস পানি খেলাম, কিছুটা প্রশান্তি লাগলো।

    বি: দ্র: পিনাক-৬ লঞ্চ দুর্যটনায়:- কারো বাবা, মা, ভাই, বোন, স্বামী কিংবা কারো স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। আমি চাই আমার স্বপ্নের মৃত্যু হোক কিন্তু আমার নিলাঞ্জনার যেন মৃত্যু না হয়, আমিন। নিলাঞ্জনাকে হারেলে আমি আমার সারা পৃথিবী হারিয়ে ফেলবো। স্বপ্নের মাঝে আমি তাকে হারিয়ে ফেলেছি কিন্তু বাস্তবে তাকে কোনদিন হারাতে চাইনা। (কেন জানি আজকে রাতের দুঃস্বপ্ন আমি কিছুতেই ভুলতে পারছিনা, কিংবা পারবো বলে মনে হয়না)

    আজ দশ বছর হতে চললো:- স্বপ্নের মায়াজাল এখনো আমার স্মৃতির দরজায় কড়া নেড়ে যায়।

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757