• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    স্বামী-স্ত্রী এক বাসায় থাকলেও দুইজন দুই দলের প্রধান

    নিজস্ব প্রতিবেদক: | ২৯ জুলাই ২০১৭ | ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ

    স্বামী-স্ত্রী এক বাসায় থাকলেও দুইজন দুই দলের প্রধান

    স্বামী এক দলের প্রধান, স্ত্রী আরেকটি দলের। একই পরিবারে দুই দলের শীর্ষ নেতা। অবাক হলেও সত্য এমনই নাম সর্বস্ব দল নিয়েই বাংলাদেশের রাজনীতিতে রাজনৈতিক জোট হচ্ছে।


    ৫৮টি দল নিয়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ নতুন জোট গঠনের পর আলোচনায় আসে জোটের রাজনীতি।

    ajkerograbani.com

    দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন যতই এগিয়ে আসছে, ততই `জোটের রাজনীতি`র ব্যাপারে মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। বাংলাদেশের গত ৪২ বছরের রাজনীতিতে ‘জোটের রাজনীতি’ প্রথম দিকে গুরুত্ব না পেলেও, ১৯৯০ সালের গণঅভ্যুত্থান ও ৯১ সালে পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকেই এ ‘জোট রাজনীতি’-এর গুরুত্ব পেয়েছে বেশি। বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতি এমনই যে কোনো একটি একক দলের পক্ষে সরকার পরিচালনা করা সম্ভব নয়। বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর পরিবর্তিত পরিস্থিতির আলোকে ১৯৭৯ সালে বাংলাদেশে দ্বিতীয়বারের মতো যখন সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল, তখন প্রথমবারের মতো মুসলিম লীগ ও সদ্যগঠিত ইসলামিক ডেমোক্রেটিক লীগ একটি সংসদীয় ঐক্য গঠন করলেও, পরে সে ঐক্য টিকে থাকেনি। বলা ভালো, স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশে জামায়াতে ইসলামী প্রথমবারের মতো ইসলামিক ডেমোক্রেটিক লীগের ব্যানারে সংগঠিত হয়েছিল এবং সংসদীয় রাজনীতিতে অংশ নিয়েছিল। কিন্তু সত্যিকার অর্থে বাংলাদেশের রাজনীতিতে জোটের রাজনীতি শুরু হয়েছিল ১৯৯১ সালে অনুষ্ঠিত পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকে।

    ২০১৯ সালে অনুষ্ঠেয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র গড়ে উঠছে রাজনৈতিক দলের সংখ্যাও। শখানেক লোক একত্রিত হয়েই তৈরি হয়েছে নতুন নতুন রাজনৈতিক দল। আবার এসব অনিবন্ধিত দল ভেঙে তৈরি হচ্ছে, উপদলও। এসব দল-উপদল ও জোটের বিষয়ে জানেন না সাধারণ মানুষ।
    খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্বামী-স্ত্রী মিলেও দল তৈরি হয়েছে। আবার কোথাও স্বামী ও স্ত্রী পৃথকভাবে দল গড়েছেন। উদ্দেশ্য জোটে যাওয়া। এসব দলের অধিকাংশেরই আবার অফিস নেই। জোটের অফিসে আনাগোনাই তাদের বেশি। এর মধ্যে আবার কিছু কিছু দল প্যাড ও ব্যানার সর্বস্ব।

    ন্যাশনালিস্ট ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (এনডিএফ) অন্যতম শরিক দল ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ ভাসানী)। এ দলের চেয়ারম্যান আবদুল হাই সরকার। তিনি দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে রাজনীতি করে আসছেন। তার পার্টির কোনো নিজস্ব অফিস নেই। জোটের অফিসেই তাকে বেশি দেখা যায়।

    এ বিষয়ে আবদুল হাই সরকার জানালেন, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ ভাসানী) ভাঙতে ভাঙতে দশটির মতো দল ও উপদলে বিভক্ত হয়েছে। তিনি জানান, ব্যক্তির স্বার্থের কারণে মাওলানা ভাসানীর এ দলটি নিবন্ধন নিতে পারেনি। সর্বশেষ, গত ১৭ মার্চ পার্টির মহাসচিব মাওলানা ভাসানীর নাতি হাসরত খান ভাসানীর নেতৃত্বে একটি অংশ বের হয়ে একই নামে পৃথক আরেকটি দল গঠিত হয়েছে।

    এ জোটের অপর একটি দল তৃণমূল ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-তৃণমূল ন্যাপের (ভাসানী) চেয়ারম্যান পারভীন নাসের খান ভাসানী। জোটের অফিসেই তৃণমূল ন্যাপের প্রধান কার্যালয়। পারভীন নাসের খান ভাসানীকে জোটের প্রধান দলের কর্মসূচিতেই বেশি দেখা যায়। আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতিও নিচ্ছেন তিনি।

    পারভীন নাসের খান ভাসানী জানান, তার দলের কয়েকটি জেলা-উপজেলায় আহ্বায়ক কমিটি আছে। কত সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি এমন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, `পার্টি অফিসে কাগজ না দেখে বলতে পারবো না। দলের নিবন্ধন চলমান প্রক্রিয়া। সময় হলে সাবমিট করবো।`

    এদিক, শেখ শওকত হোসেন নীলুর মৃত্যুর পর এনডিএফ ছাড়তে শুরু করে অন্যান্য দল। ১১ মে নীলুর স্মরণসভায় বাংলাদেশ ন্যাশনাল কংগ্রেস চেয়ারম্যান শেখ শহিদুজ্জামান এনডিএফ জোট থেকে বেরিয়ে আসার ঘোষণা দেন।

    নাজমুল হুদার নেতৃত্বাধীন বিএনএ জোটে আছে স্বামী ও স্ত্রীর পৃথক দল। এ জোটে স্বামী একদলের চেয়ারম্যান ও স্ত্রী আরেক দলের। জোটের মহাসচিব মেজর (অব.) ডা. শেখ হাবিবুর রহমান `বাংলাদেশ জাগো বাঙ্গালী`র (বিজেবি) চেয়ারম্যান। তার স্ত্রী ডা. আফরোজা বেগম হ্যাপি `বাংলাদেশ মানবাধিকার পার্টি` নামে অপর একটি সংগঠনের চেয়ারম্যান। তারা দুজনেই আছেন বিএনএ জোটে।

    এ বিষয়ে হাবিবুর রহমান জানান, তিনবছর আগে বাংলাদেশ `জাগো বাঙ্গালী` নামে তিনি এ রাজনৈতিক দলটি গঠন করেন।

    তার সংগঠনের ২০ জেলায় আহ্বায়ক কমিটি আছে। তবে প্রত্যেক কমিটিতে একজন করে।

    হাবিবুর রহমান বলেন, `এখন জোটের রাজনীতি। ইতোমধ্যে, আমরা ১৪ দলীয় জোটকে সমর্থন দিয়েছি।` এর আগে তিনি `জাগো বাঙালী ফাউন্ডেশন` নামে একটি সামাজিক সংগঠন করতেন। বিএনএ জোটের আরেকটি দল হচ্ছে, `বাংলাদেশ দুনিয়া দল`। এ দলের চেয়ারম্যান সামসুদ্দিন খান বলেন, `আমি শহরমুখী রাজনীতি করি না। গ্রামে আমার অফিস। আমি গ্রামে রাজনীতি করি। নির্বাচন কমিশনে আবেদন করা আছে। কিন্তু নিবন্ধন নেই।`

    `কৃষক শ্রমিক পার্টি`-কেএসপি’র সভাপতি সালাম মাহমুদের নেতৃত্বে `যুক্তফ্রন্ট` নামে অপর একটি জোট রয়েছে। এ জোট কখনো নাজমুল হুদার নেতৃাধীন বিএনএ জোটে আবার কখনো এরশাদের জাতীয় পার্টিতে ভিড়তে চেষ্টা করছে। সালাম মাহমুদ তার জোটের আকার বড় করতে কেএসপির সহযোগী সংগঠন ভেঙে পৃথক পৃথক দল গঠন করেছেন। কয়েক দিন আগে `কৃষক শ্রমিক পার্টি`র সহযোগী সংগঠন যুব ফ্রন্টের সভাপতিকে দিয়ে `বঙ্গপার্টি নামে` একটি নতুন দল গঠন করেছেন। `কৃষক শ্রমিক পার্টি`র যুব ফ্রন্টের সভাপতি ছিলেন মায়ারাজ। মায়ারাজ বর্তমানে `বঙ্গপার্টি` চেয়ারম্যান। আর মহাসচিব করা হয়েছে, ওই ফ্রন্টের মহিলা নেত্রীকে নিলাঞ্জনা চম্পা। মায়ারাজ বলেন, `আমি আনুষ্ঠানিকভাবে যুব ফ্রন্টের দায়িত্ব ছাড়িনি। যোগ্য কাউকে পেলে তার কাছে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেবো। আমার পার্টির আনুষ্ঠানিক অভিষেক হলেই পদটি ছেড়ে দেবো।` তিনি বলেন, `আগামী নির্বাচনে অংশ নিতেই আমার পার্টির আত্মপ্রকাশ হয়েছে। আমরা এরশাদের জোটে যাওয়ার চেষ্টা করছি।`

    জানা গেছে, কেএসপি ভেঙে আরো দুটি দল হয়েছে। কেএসপি`র `ওলামা পার্টি`র সহসভাপতি মাওলানা দেলোয়ারের `বাংলাদেশ জনকল্যাণ পর্যবেক্ষণ ফ্রন্ট`, সালাম মাহমুদের ভাই ইমদাদুল হক রানাও `বাঙালী জনতার পার্টি` নামে একটি সংগঠনের চেয়ারম্যান। তিনিও কেএসপির নেতা ছিলেন।

    যুক্তফ্রন্টের বিষয়ে দেলোয়ার বলেন, `আমি সালাম মাহমুদের ফ্রন্টে নেই। তবে তাদের প্রোগ্রামে যাই। কেএসপির সাংগঠনিক সম্পাদক জহিরুল হক বশির `আঞ্জুমানে তরিকতে সাজ্জাদী` নামে একটি পার্টির মহাসচিব।

    যুক্তফ্রন্ট নিয়ে এরশাদের জাতীয় ঐক্য জোটেও ভিড়তে জোর লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন সালাম মাহমুদ। এরই মধ্যে, `জাতীয় ঐক্য জোট`র সমন্বয়কারী জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সুনীল শুভ রায়ের সঙ্গে প্রথম দফা আলোচনা সেরেছেন যুক্তফ্রন্টের নেতারা।

    এ বিষয়ে সালাম মাহমুদ বলেন, `কেএসপি ভেঙে কিছুই হয়নি। আর দেলোয়ার আমারদের ফ্রন্টেই আছেন। জহিরুল হক বশির আমাদের পার্টি থেকে পদত্যাগ করেছেন। আবার দুই জোটেও আছে অনেক দল। `সম্মিলিত নাগরিক পার্টি` বিএনএ জোটও আছে, আবার যুক্তফ্রন্টেও আছে।`

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    গৃহবধূ থেকে শিল্পপতি

    ২২ এপ্রিল ২০১৭

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4755