শুক্রবার ৬ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২২শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে অনিয়ম

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ   |   মঙ্গলবার, ১৪ জানুয়ারি ২০২০ | প্রিন্ট  

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে অনিয়ম

দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবির) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় গত বছরের ২রা ডিসেম্বর থেকে ৫ই ডিসেম্বর। মোট চারটি ইউনিটে অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয় ৮ ই ডিসেম্বর।প্রকাশিত ফলাফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থী ভর্তি শুরুর পর ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি প্রক্রিয়ায় ইতোমধ্যেই দেখা মিলেছে নানা অসঙ্গতি-অনিয়ম। ‘বি’ ইউনিটের দ্বিতীয় শিফটে ১৫৪ তম মেধা তালিকায় চান্স প্রাপ্ত মামুন ইসলাম নামের এক শিক্ষার্থী ভর্তি প্রক্রিয়ায় অনিয়ম হয়েছে বলে দাবি করেন। ওই শিক্ষার্থীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অনুসন্ধানে এর সত্যতা মিলে। অনুসন্ধানে দেখা যায়, মেধাতালিকায় ১৫৪ তম হয়ে প্রথমে গণিত পেলেও পরে অটোমাইগ্রেশন এর পর মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ ভর্তির সুযোগ পেয়েছে মামুন ইসলাম নামের (রোল নং-২১৩৪৩৯) ওই শিক্ষার্থী।যেখানে ওই শিক্ষার্থীর বিষয় পছন্দক্রম ছিল যথাক্রমে (ইইই, সিএসই, ইসিই, মেকানিকাল
ইঞ্জিনিয়ারিং)। অন্যদিকে অপেক্ষমান তালিকায় থাকা ১৯৬তম মেধাক্রম (রোল নং-২১২৮৯০) নিয়ে এক শিক্ষার্থী পেয়েছেন ‘ইইই’। অথচ প্রথম বিষয় পছন্দক্রম ‘ইইই’ থাকলেও ১৫৪ তম মেধাক্রম নিয়ে মেধাতালিকায় থাকা মামুন ইসলাম নামের ওই শিক্ষার্থী (রোল নং-২১৩৪৩৯) ‘ইইই’ পান নাই।
একই ঘটনা ঘটেছে ‘বি ইউনিটের’ তৃতীয় শিফটের ফলাফলেও। এই শিফটে মেধাতালিকায় ৮৪ তম এক শিক্ষার্থী বিষয় পেয়েছেন ‘ইসিই’। এই শিক্ষার্থীর বিষয় পছন্দক্রম ছিল (‘সিএসই, ইইই, ইসিই, মেকানিকাল, ইঞ্জিনিয়ারিং)। বিষয় পছন্দক্রম অনুযায়ী ৮৪ তম মেরিট পজিশন ধারী শিক্ষার্থীর সাবজেক্ট পাবার কথা ছিল ‘সিএসই’, কিন্তুু উক্ত শিক্ষার্থী সেটা না পেলেও ১৯৬তম মেরিট পজিশন নিয়ে অপেক্ষমান তালিকা থেকে ‘সিএসসি’ পেয়েছে অন্য এক শিক্ষার্থী।
এ ব্যাপারে ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সহযোগী সদস্য সচিব প্রফেসর ড.মো. মফিজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান আমরা বিষয়টির ব্যাপারে ইতোমধ্যে অবগত হয়েছি। ব্যাপারটি খতিয়ে দেখা হবে। কিন্তু ইতোমধ্যে এভাবে যারা ভর্তি হয়েছে তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত কি হবে, এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি জানান তাদের ভর্তি বাতিল করা হতে পারে।
এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এবং ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সদস্য সচিব প্রফেসর ড.মোহাম্মদ খালেদ হোসাইনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘আসলে এটা হয়তো সফটওয়্যার প্রবলেমের জন্য হয়েছে। তবে আমরা সকল শিক্ষার্থীর ভর্তি শেষে এ ব্যাপারে মিটিং ডেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিবো কোন অসঙ্গতি চোখে পড়লে।
অন্যদিকে যে সকল শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে অনিয়ম করে ভর্তির অভিযোগ এসেছে তাদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তারা কেউ কথা বলতে রাজী হয় নাই।

Facebook Comments Box


Posted ১০:৩৯ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ১৪ জানুয়ারি ২০২০

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১