• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ১৪ সেপ্টেম্বরের এলডিপির যোগদান অনুষ্ঠান ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক আলোচনা

    মাহবুবুর রহমান | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১২:৫০ অপরাহ্ণ

    ১৪ সেপ্টেম্বরের এলডিপির যোগদান অনুষ্ঠান ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক আলোচনা

    লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি- এলডিপিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা ও আর্মির একজন সাবেক মেজর জেনারেলের যোগদান উপলক্ষে শনিবার বিকাল সাড়ে ৪ টায় এলডিপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে একটি যোগদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।


    এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমদের সভাপতিত্বে যোগদান অনুষ্ঠানে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখবেন দলটির প্রেসিডেন্ট ও জাতীয় মুক্তিমঞ্চের আহ্বায়ক কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম।


    জানাগেছে, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ নেতা ও বাংলাদেশ আর্মির সাবেক একজন মেজর জেনারেলের এদিন এলডিপি যোগদান করবেন। ওই দিনের যোগদান অনুষ্ঠান চমকে ভরপুর থাকছে বলে জানিয়েছেন দলটির একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা।

    উল্লেখ্য, পুনজাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠান ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবীসহ ১৮ দফা দাবী আদায়ের লক্ষ্যে-২৬ জুন জাতীয় মুক্তিমঞ্চ এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন এলডিপির চেয়ারম্যান ড. কর্নেল অলি আহমদ।
    আঠারো দফা দাবীর মধ্যে রয়েছে, জাতীয় সংসদের পুননির্বাচন,দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি, দেশবিরোধী চুক্তি প্রকাশ, রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান রক্ষা, জাতীয় বিশেষজ্ঞ কমিশন গঠন, দেশের শিক্ষিত যুবকদের নিয়োগে অগ্রাধিকার,গুম ও খুন বন্ধের পদক্ষেপ নেয়া, লিগ্যাল এইড কমিটি গঠনের ঘোষণা, প্রতিবন্ধকতা ও হয়রানি বন্ধ, স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন, ভেজাল ও নকল ঔষধ বন্ধ, খাদ্যে ভেজাল কারীদের মৃত্যুদন্ড, কৃষকের ন্যায্যমূল্য, অর্থনৈতিক সমতা ও সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা, জাল ভোট প্রদানকারী ও সাহয্যকারীদের শাস্তি নিশ্চিত করা, ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট বাতিল ও বন্ধ করে দেয়া মিডিয়া খুলে দেয়া, দুর্নীতি দমন আইনের বৈষম্য দূরীকরণ এবং রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য সাংবিধান অনুযায়ী সুযোগ সৃষ্টির দাবি।

    ওই দিন কর্নেল অলি বলেন, আমাদের উপলব্ধি করতে হবে যে, ১৯৭১ সালে লক্ষ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। স্বাধীনতা যুদ্ধের মূল চেতনাই ছিল উদার গনতন্ত্র ; একনায়কতন্ত্র নয়। সুতরাং কোন অবস্থাতেই আমরা একনায়কতন্ত্র ও নিয়ন্ত্রিত গনতন্ত্র মেনে নিতে পারি না। তিনি বলেন, বর্তমানে সমগ্র পৃথিবী দুইভাগে বিভক্ত। প্রথমটি হচ্ছে একনায়কতন্ত্র ও নিয়ন্ত্রিত গণতন্ত্র, দ্বিতীয়টি হচ্ছে উদার গণতন্ত্র। সুতরাং, আমরা বেঁচে থাকতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বিসর্জন দিতে পারি না।

    একাত্তরের রণাঙ্গনের এই মুক্তিযোদ্ধা বলেন,আমাদের এবারের কর্মসূচি হবে শান্তিপূর্ণ এবং লক্ষ্য হবে জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করা অর্থাৎ জাতিকে মুক্ত করা তথা ন্যায় বিচার ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা, মানবাধিকার নিশ্চিত করা ও জনগণের সরকার গঠন করা। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া এবং সকল রাজবন্দিদের মুক্ত করতে হবে, নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। আশাকরি আমাদের এই কর্মসূচিতে জনগণ এবং সকল বিরোধী দল নিজ নিজ অবস্থান থেকে সমর্থন দেবেন,সহযোগিতা করবেন, অংশগ্রহণ করবেন।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4673