• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ১ জুলাই নতুন মূল্য সংযোজন কর ও শুল্ক আইন বাস্তবায়ন

    অনলাইন ডেস্ক | ০৫ মে ২০১৭ | ৯:১৯ পূর্বাহ্ণ

    ১ জুলাই নতুন মূল্য সংযোজন কর ও শুল্ক আইন বাস্তবায়ন

    অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ১ জুলাই থেকে অনলাইনভিত্তিক নতুন মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন-২০১২ বাস্তবায়ন হবে। আইনটি ২০১২ সালে জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে।


    এ আইন প্রণয়নের উদ্দেশ্য হল- কর আদায় পদ্ধতি সহজতর করা। এর ফলে ভ্যাটের আওতা ও কার্যক্রম ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাবে। ফলস্বরূপ রাজস্ব আদায়ও বাড়বে। একই সঙ্গে ট্যাক্স জিডিপি রেশিও বাড়বে।

    ajkerograbani.com

    বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে আমিনা আহমেদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান। মন্ত্রী বলেন, রাজস্ব আয় বৃদ্ধির মাধ্যমে দেশকে আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে সরকার বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

    জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের জনবল দ্বিগুণেরও বেশি বাড়ানো হয়েছে। ২০০৯ সালে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের জনবল ছিল ১৩ হাজার ২৯৮ জন। ২০১৩ সালে তা দাঁড়ায় ২২ হাজার ৫৭ জনে।

    তিনি বলেন, বর্তমানে করদাতারা মানসিকভাবে কর দিতে যেমন প্রস্তুত, তেমনি কর আদায়কারীরা কর আদায়ে হয়রানি পরিহার করে করদাতাদের প্রতি সদ্ব্যবহার করা ও আস্থা রাখায় আগ্রহী।

    বর্তমানে এ উৎস থেকে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর্তৃক মোট রাজস্বের ৩৭ শতাংশ। এর হারকে ২০২০-২১ সালে মোট রাজস্বের ৫০ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

    এ ছাড়া কর বৃদ্ধি না করে কর নেট সম্প্রসারণের মাধ্যমে রাজস্ব আয় বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

    আবুল মাল আবদুল মুহিত জানান, কর ফাঁকি রোধে অনলাইনভিত্তিক স্বয়ংক্রিয়ভাবে তথ্য সংগ্রহ ব্যবস্থা প্রবর্তনের লক্ষ্যে একটি আধুনিক ও প্রযুক্তিমুখী কর তথ্য ইউনিট গঠন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

    আন্তঃসীমানা কর ফাঁকি রোধকল্পে ট্রান্সফার প্রাইসিং সেল গঠনসহ আন্তর্জাতিক কর কার্যক্রমকে আরও শক্তিশালী করা হয়েছে।

    পানির স্তর ৩ থেকে ১০ মিটার নিচে নেমেছে : আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইনের এক প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, দারিদ্র্য বিমোচনে টেকসই অগ্রগতি নিশ্চিত করতে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মেয়াদ ইতিমধ্যে ২০২০ সাল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে।

    সরকার এ প্রকল্পকে স্থায়ী রূপ দিতে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেছে। উপজেলা পর্যায়ে পল্লী ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু করার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

    তিনি আরও জানান, প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে ই-লানিং কাম মার্কেটিং সেন্টার (অফিস ঘর) স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে। আর প্রতিটি গ্রামে একটি করে পুকুর তৈরি করারও পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।

    ন্যাপের আমেনা আহমেদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, সুপেয় পানি ও কৃষি কাজে ভূ-গর্ভস্থ পানির ওপর অধিক হারে নির্ভরশীলতার কারণে ইতিমধ্যে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর ৩ মিটার থেকে ১০ মিটার পর্যন্ত নিচে নেমে গিয়েছে। ফলে শুষ্ক মৌসুমে নলকূপে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পাওয়া যায় না।

    এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য সরকার ৩৭৫ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে। এ প্রকল্পের আওতায় সারা দেশে ৮০৯টি পুকুর পুনর্খনন করা হবে।

    মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় ঢাকা ওয়াসা পরিবেশবান্ধব, টেকসই ও গণমুখী পানি ব্যবস্থাপনার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। সে লক্ষ্যে ঢাকা ওয়াসা একটি ওয়াটার মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন করেছে।

    মাস্টার প্ল্যানের সুপারিশ অনুযায়ী ২০২১ সাল নাগাদ রাজধানী ঢাকায় ৭০ ভাগ পানি ভূ-উপরিস্থ পানির উৎস থেকে সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য কাজ চলছে। ঢাকা ওয়াসা এ লক্ষ্যে তিনটি বৃহৎ পানি শোধনাগার প্রকল্প গ্রহণ করেছে।

    মমতাজ বেগমের প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী জানান, ২০২১ সালের মধ্যে সারা দেশে স্যানিটেশন ব্যবস্থা শতভাগ নিশ্চিত করতে স্থানীয় সরকার বিভাগের জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে স্যানিটেশন কভারেজ উন্নয়নে বাংলাদেশ প্রভূত সাফল্য অর্জন করেছে।

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757