• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    ৭ মার্চের ভাষণের ভিন্ন ব্যাখ্যা দিলেন বিএনপি নেতারা

    | ০৮ মার্চ ২০২১ | ৮:৩১ পূর্বাহ্ণ

    ৭ মার্চের ভাষণের ভিন্ন ব্যাখ্যা দিলেন বিএনপি নেতারা

    প্রশংসা বাক্য কিংবা ইতিবাচক বিশ্লেষণ নয়, ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের রীতিমত ভিন্ন ব্যাখ্যা দিয়ে বিএনপি নেতারা বললেন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার ইচ্ছা থেকেই সেদিন স্বাধীনতার ঘোষণা দেননি বঙ্গবন্ধু। দল গঠনের ৪২ বছর পর জাতীয় প্রেসক্লাবে ৭ই মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত প্রথম কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে তারা বললেন, স্বাধীনতার ঘোষণা না শুনে সেদিন আশাহত হয়েছিল বাঙালি জাতি।


    ১৯৭৮ সালে রাজনৈতিক দল হিসেবে আত্মপ্রকাশের পর ৭ই মার্চ উপলক্ষে এটিই বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি’র প্রথম কর্মসূচি। রোববার (৭মার্চ) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় যোগ দেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ শীর্ষ নেতারা।

    ajkerograbani.com

    আলোচনার শুরু থেকেই ৭ই মার্চের ভাষণের ভিন্ন ব্যাখ্যা হাজির করতে থাকেন বিএনপি নেতারা। ৭ই মার্চের গুরুত্ব ও গৌরবগাঁথা নিয়ে যৎসামান্য আলোচনা হলেও বড় অংশজুড়েই করা হয় তীর্যক মন্তব্য। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন বলেই বঙ্গবন্ধু ৭ই মার্চে স্বাধীনতার ঘোষণা দেননি, বলেও মন্তব্য করেন তারা।

    অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য সংখ্যাগরিষ্ট দল হিসেবে আন্দোলন-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় ৭ই মার্চের ভাষণেও বঙ্গবন্ধু সেই দরকষাকষি করেছিলেন। তিনি বলেন, ২৪শে মার্চ পর্যন্ত পাকিস্তান সরকারের সাথে ক্ষমতায় বসা নিয়ে আলাপ-আলোচনা ও ২৭শে মার্চ হরতাল ঘোষণা থেকে পরিষ্কার হয়, ৭ই মার্চে স্বাধীনতা ঘোষণা করেননি বঙ্গবন্ধু। ৭ই মার্চের ভাষণকে ঐতিহাসিক আখ্যায়িত করে ড. খন্দকার মোশাররফ বলেন, এই ভাষণ জাতিকে উদ্দীপ্ত করেছিলেন। তিনি বলেন, মুজিবুর রহমানের অবদানকে ছোট করে দেখে না বিএনপি। বিএনপি ইতিহাস থেকে কাউকে মুছে ফেলতে চায় না।

    বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, বিএনপি ৭ই মার্চ পালন করায় আওয়ামী লীগের গাত্রদাহ শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের আর কোনো পুঁজি নাই, একটাই পুঁজি ৭ই মার্চ। যে ভাষণে গোটা দেশ স্বাধীনতার ঘোষণা আশা করেছিলাম, তা আসেনি বঙ্গবন্ধুর ভাষণে।

    মির্জা আব্বাস বলেন, বঙ্গবন্ধু ও জিয়াউর রহমানের অবস্থান নির্ধারণ করবে ইতিহাস, কারো বানানো ইতিহাসে জিয়াকে ছোট আর বঙ্গবন্ধুকে বড় করা যাবে না।
    অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘শুধুমাত্র ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য, ব্যক্তিগত স্বার্থে নিজেদের মহিমান্বিত করার জন্য, একজন মানুষকে মহিমান্বিত করার জন্য, একটি পরিবারকে মহিমান্বিত করার জন্য তারা মিথ্যা ইতিহাস এদেশের মানুষের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছে।

    বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘ক্ষমতাসীনদের বক্তব্যে কোথাও তোফায়েল আহমেদের কথা পাবেন না, আব্দুল হামিদ খান ভাসানির কথা পাবেন না। এমনকি মহান মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক এমএজি ওসমানির নামও একবারও উচ্চারণ করা হয় না। যুদ্ধকালীন সরকারের যিনি নেতৃত্ব দিলেন তার নামও নেয়া হয় না।  সংকীর্ণ আর ভয়ংকর এরা। এদের একমাত্র কাজ হচ্ছে, মুক্তিযুদ্ধে যাদের অবদান আছে, তাদের দূরে সরিয়ে রাখা। তাদের একমাত্র স্লোগান, এক নেতার এক দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ। এটা শুরু হয়েছে সেই একান্তরের পর থেকেই। তখন থেকেই তাদের মধ্যে ছিলাম, আমরা এক ও অদ্বিতীয়, এখানে একজন ছাড়া কেউ থাকবে না। এখনো সেই একই কাজ শুরু হয়েছে। তাহলে সবকিছুর দায় তার ওপর (প্রধানমন্ত্রীর)। তাহলে আল জাজিরা যখন বলে ‘অল প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ তখন কী অপরাধ তারা করে?’

    ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, নিজেদের বেআইনি শাসন বলবৎ রাখার জন্য এই আইন করা হয়েছে।

    জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, খেতাবে কী আসে যায়, জিয়াউর রহমানের খেতাবের প্রয়োজন হয় না। তিনি বলেন, গণতন্ত্র কেড়ে নিয়ে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার সাথে সবচেয়ে বড় বিশ্বাসঘাতকতা করেছে আওয়ামী লীগ। ৭ই মার্চের ভাষণ সম্পর্কে মোশাররফ বলেন, এই ভাষণে পাকিস্তানের কাঠামোর ভেতরে থেকেই সংখ্যাগরিষ্ট দল হিসেবে ক্ষমতায় আসীন হওয়ার আভাস ছিলেন। বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামের অনেকগুলো মাইল ফলকের মধ্যে একটি অন্যতম ও গুরুত্বপূর্ণ মাইল ফলক হলো ৭ই মার্চ।

    তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলের প্রোপাগান্ডা কিংবা আদালতের নির্দেশে ইতিহাস রচিত হয় না। ইতিহাস রচনা করবেন ইতিহাসবিদরা, রাজনীতিবিদরা নয়।

    Facebook Comments Box

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757