শনিবার ১০ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সেনা সমাবেশ বাড়ানো নিয়ে মস্কোর ভুল স্বীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

সেনা সমাবেশ বাড়ানো নিয়ে মস্কোর ভুল স্বীকার

ইউক্রেনে সেনা সমাবেশ বাড়ানোর ঘোষণা নিয়ে রাশিয়াজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ ও বিরোধিতার মধ্যেই নিজেদের ভুল স্বীকার করেছে মস্কো। শুধু তাই নয়, এতে প্রেসিডেন্টের জারি করা ডিক্রি লঙ্ঘন করা হয়েছে বলেও অভিযোগ ক্রেমলিনের। তবে, শিগগিরই ভুল সংশোধন করে সেনা সমাবেশ বাড়ানোর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলে মস্কোর আশ্বাস। খবর বিবিসির।

রাশিয়ার কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা তিন লাখ সেনা সমাবেশ করবে। গণমাধ্যমের তথ্য হচ্ছে, এ সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে। তবে ইউক্রেন যুদ্ধ ঘিরে এই সেনা সমাবেশ নিয়ে এরই মধ্যে বিপাকে পড়েছে ক্রেমলিন। দেশটিতে সেনা সমাবেশ ঘিরে সৃষ্টি হয়েছে বিক্ষোভ। কিন্তু মানুষের ক্ষোভের মুখেও সেনা সমাবেশের কাজ থেমে নেই। তবে রিজার্ভ সেনা ডাকার ক্ষেত্রে কিছু ভুল করেছে ক্রেমলিন। সেসব ভুলের বিষয়টি ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে স্বীকার করেও নেয়া হয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্টের জারি করা ডিক্রি লঙ্ঘন করার কিছু ঘটনা রয়েছে। তবে সব ভুল সংশোধন করা হবে।’

নতুন সেনা সমাবেশের ঘোষণার পরপরই তা বাস্তবায়ন শুরু করে দিয়েছে রাশিয়া। এ জন্য খসড়া তৈরির কাজ চলছে। এ খসড়া নিয়ে চলছে সমালোচনা। গণমাধ্যমের একাধিক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, সামরিক অভিজ্ঞতাহীন অনেক ব্যক্তি যাদের মধ্যে বয়স্ক ও শারীরিকভাবে অক্ষম এমন লোকজনকেও তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

এদিকে গত সপ্তাহে পুতিনের জারি করা ডিক্রি ঘিরে দেশটিতে ব্যাপক বিক্ষোভ চলছে। গত ২১ সেপ্টেম্বর পুতিন আংশিক সেনা সমাবেশের ঘোষণা দেন। এরপর প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু বলেন, ৩ লাখ রিজার্ভ সৈন্যকে ডাকা হবে। তবে রুশবিরোধী গণমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে, ১০ লাখের বেশি সেনা সমাবেশ ঘটাতে পারে রাশিয়া। পুতিনের ডিক্রিতে যে সেনাসংখ্যার কথা বলা হয়েছে, তার চেয়ে অনেক বেশি সেনা ডাকা হবে। কিন্তু তা গোপন করে রাখা হয়েছে।

পশ্চিমা সামরিক বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, রাশিয়ার রিজার্ভ সৈন্য ডাকার অর্থ হচ্ছে ইউক্রেনের যুদ্ধক্ষেত্রে রুশ সেনারা ব্যাপক বাজে পরিস্থিতিতে পড়েছে। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের ঘোষণা দেন পুতিন।

এদিকে পুতিনের সেনা সমাবেশের ঘোষণার পর থেকে রাশিয়ায় যে বিক্ষোভ হচ্ছে সেখান থেকে অন্তত ২ হাজার মানুষকে আটক করা হয়েছে। বিক্ষোভের সময় সবচেয়ে বেশি গ্রেফতার করা হয় মস্কো এবং সেন্ট পিটার্সবার্গ শহর থেকে।

গত ২১ সেপ্টেম্বর জাতির উদ্দেশে টেলিভিশনে ভাষণ দেন পুতিন। এ সময় আংশিক সেনা সমাবেশে তিন লাখ রিজার্ভ সৈন্যকে ডাকা হবে বলে তিনি জানান। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় রাশিয়ার এ সেনা সমাবেশকে বড় ধরনের উত্তেজনা বৃদ্ধি হিসেবে দেখা হচ্ছে।

পুতিন তার ভাষণে ইউক্রেন ও এর পশ্চিমা মিত্রদের প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘রাশিয়ার ভূখণ্ড রক্ষায় সামর্থ্যে থাকা সব উপায় প্রয়োগ করব। প্রয়োজনে পারমাণবিক অস্ত্রও ব্যবহার করা হবে। পশ্চিমারা যদি “পারমাণবিক ব্ল্যাকমেল” অব্যাহত রাখে, তাহলে মস্কো তার হাতে থাকা অস্ত্রের বিশাল মজুতের শক্তি দিয়েই জবাব দেবে।’

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন যুদ্ধে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের যে হুমকি দিয়েছেন, তা মোটেও ‘ধাপ্পাবাজি’ বলে মনে করছেন না ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএস নিউজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক প্রধান জোসেপ বোরেলও বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, পুতিনের হুমকিকে ইইউর গুরুত্বের সঙ্গে নেয়া উচিত।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৪:৩৬ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]