শনিবার ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লাল সিঁদুরে রঙিন খেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২ | প্রিন্ট

লাল সিঁদুরে রঙিন খেলা

ত্রিনয়নী দেবী দুর্গার বিদায় বেলায় ভক্তদের মাঝে বিষাদের সুর। তবে এর মাঝেও মহিসাসুরকে পরাজিত করে বিজয় অর্জনের আনন্দ বিরাজমান। সকালে দর্পণ বিসর্জনের পরই নারীরা মেতে ওঠেন সিঁদুর খেলায়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার রামঠাকুর ক্লাব, গগন সাহা বাড়ি রোড সার্বজনীন পূজা মন্ডপ, টাউন সার্বজনীন পূজা মন্ডপ, শিববাড়ি পুজা মন্ডপে সিঁদুর খেলায় মেতে ওঠেন রমনীরা। এ সময় সধবা নারীরা একে অপরকে সিদুর পরিয়ে দেন।

গগন সাহাবাড়ী পূজামন্ডপে উপস্থিত সম্পা সাহা, দিপ্তী সাহা, ঈশিতা চক্রবর্তী জানান- তারা দেবী দুর্গা মায়ের কাছে প্রার্থনা করেছেন যেন স্বামী সংসারে সবাইকে সুখে শান্তিতে রাখেন। প্রতিটি মানুষ যেন সুখে শান্তিতে থাকে সেই প্রার্থনাও করেছেন তারা।

 

একই কথা জানান রামঠাকুর ক্লাবের পূজা মন্ডপে সিঁদুর খেলায় অংশ নেওয়া তমা সূত্রধর, কানন সাহা, জয়া সাহা, অনিতা রায়। তারা জানান, মায়ের বিদায়ের সুরে যেমন কষ্ট হচ্ছে তেমনি আবার আসবে বলে মনে সান্তনা পাচ্ছি। সিঁদুর খেলার মাধ্যমে আমাদের প্রত্যাশা মা আমাদেরকে সুখে শান্তিতে রাখবেন।

গগন সাহারবাড়ি পূজা মন্ডপের পুরোহিত কৃষ্ণ চক্রবর্তী ও নান্টু চক্রবর্তী জানান, দেবী দুর্গা অশুভ শক্তি অসুরকে দশম দিনে পরাজিত করে। সেটি পৌরাণিক কাহিনীতে বিস্তারিত বর্ণনা করা রয়েছে। বিজয়া দশমীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতিটি ভক্তকূলে বিজয়ের আনন্দ বিরাজ করছে। অন্যদিকে মায়ের বিদায়কালে প্রতিটি ভক্তের মনে বিষাদের ছায়া।

তারা আরো জানান, দর্পণ বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় মূল আনুষ্ঠানিকতা। এর মধ্য দিয়ে ভক্তদের আর্শিবাদ করে দেবী দূর্গা নৌকায় করে আবারো ফিরে গেছেন কৈলাসে স্বামীগৃহে। অপেক্ষা আবারো এক বছর পর তিনি ফিরে আসবেন ভক্তদের মাঝে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১২:১৫ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]