বৃহস্পতিবার ১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

তিন বাংলাদেশির প্রতি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের শেষ শ্রদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২ | প্রিন্ট

তিন বাংলাদেশির প্রতি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের শেষ শ্রদ্ধা

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে শান্তিরক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার সময় বিস্ফোরণে নিহত তিন বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন দেশটিতে পরিচালিত জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন।

স্থানীয় সময় বুধবার (৫ অক্টোবর) ৮টা ৪৪ মিনিটে দেশটির কুই শহরের কাছে অবস্থিত মিশনের আঞ্চলিক অফিস প্রান্তে আয়োজিত এক শোক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ শ্রদ্ধা জানানো হয়। আয়োজনে দেশটিতে শান্তিরক্ষা মিশনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরাও অংশ নেন।

এর আগে, স্থানীয় সময় গত সোমবার (৩ অক্টোবর) রাত ৮টা ৩৫ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৩৫ মিনিটে) বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের একটি গাড়িতে ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) বিস্ফোরণ হয়। এতে ৩ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী নিহত এবং একজন গুরুতর আহত হন।

নিহত শান্তিরক্ষীরা হলেন: ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর থানার কাটিঙ্গা গ্রামের জসিম উদ্দিন, নীলফামারীর ডিমলা থানার দক্ষিণ টিটপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম এবং সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থানার বাড়াক রুয়া গ্রামের শরীফ হোসেন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) এক বিবৃতিতে বলা হয়, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের পশ্চিম সেক্টরে বোয়ার এলাকায় মোতায়েন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি পদাতিক ব্যাটালিয়ন ২০২১ সালের ৯ নভেম্বর থেকে বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে শান্তিরক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে। দুর্গম এলাকায় মোতায়েন অন্যতম অস্থায়ী ক্যাম্প কুই হতে পরিচালিত যান্ত্রিক টহলের একটি দল মেজর আশরাফের নেতৃত্বে স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় কাইতা এলাকায় টহলে যায়। বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৩৫ মিনিটে ফেরার পথে টহল কমান্ডার মেজর আশরাফকে বহনকারী প্রথম গাড়িটি মাটিতে পুঁতে রাখা আইইডি বিস্ফোরণের কবলে পড়ে। এতে গাড়িটি প্রায় ১৫ ফুট দূরত্বে ছিটকে পড়ে। এতে সৈনিক শরীফ, সৈনিক জাহাঙ্গীর ও সৈনিক জসিম ছাড়াও মেজর মো. আশরাফুল হক মারাত্মক আহত হন।

পরে ঘটনাস্থল থেকে তাদের দ্রুত উদ্ধার করে ১৪৪ কিলোমিটার দূরে বোয়ারের মিনুসকা হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সৈনিক শরীফ, সৈনিক জাহাঙ্গীর ও সৈনিক জসিমকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ছাড়া আহত অপর শান্তিরক্ষী মেজর মো. আশরাফুল হক হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন। তার অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল।

শহীদ শান্তিরক্ষীদের দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া চলছে। এ ছাড়া মিশনে নিয়োজিত অন্যান্য শান্তিরক্ষী নিরাপদে আছেন বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়।

এর আগে চলতি বছরের জানুয়ারিতে মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বিস্ফোরণে তিন বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী আহত হন।

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন এমআইএনইউএসসিএর তথ্য অনুযায়ী, আফ্রিকার ৫০ লাখ মানুষের এ দেশটি বিশ্বের অন্যতম দরিদ্র এবং বিশ্বের স্বল্পোন্নত দেশের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে আফ্রিকার এ দেশে সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা বিরাজ করছে।

জীবনের ঝুঁকি নিয়েও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর শান্তিরক্ষীরা আফ্রিকার ৮টি দেশে শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব বজায় রেখে বিশ্বের দরবারে দেশের মর্যাদা অক্ষুণ্ণ রেখে চলেছে এবং জাতিসংঘে শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী দেশ হিসেবে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৩:৪২ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]