শনিবার ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জুয়া খেলতে নিষেধ করায় ফুফুকে হত্যা করেন ভাতিজা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   মঙ্গলবার, ০৮ নভেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

জুয়া খেলতে নিষেধ করায় ফুফুকে হত্যা করেন ভাতিজা

কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং এস্টেট এলাকায় ফুফু রোকসানা খানমকে (৫২) শিল-পাটার নোড়া দিয়ে হত্যার দায়ে ভাতিজা নওরোজ জাবিদ নিশাতকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

সোমবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার দায় স্বীকার করলে রাতে তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

অনলাইন জুয়া খেলতে নিষেধ করায় ফুফুকে হত্যা করেন নিশাত। সোমবার সকালে কুষ্টিয়া পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের হাউজিং ডি ব্লক এলাকার ২৮৫ নম্বর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে। শিক্ষিকার নিজ বাড়ির দ্বিতীয় তলা থেকে তার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নওরোজ জাবিদ নিশাত (১৯) কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় উপজেলা শহরের স্বর্ণকার পট্টি এলাকায় বাসিন্দা মৃত টিপুর ছেলে। মাত্র ৪ বছর বয়সে নিশাতের বাবা-মারা যান। নিহত রোকসানা তার আপন ফুফু। তিনি নিঃসন্তান হওয়ায় নিশাতের বাবা মারা যাওয়ার পর থেকেই নিশাতকে তিনি সন্তানের মতো লালনপালন করে বড় করেন।

নিহত রোকসানা ভেড়ামারা সরকারি গালস স্কুলের সাবেক সহকারী শিক্ষক মৃত রওশন আলীর বড় মেয়ে। তিনি কুষ্টিয়া জিলা স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক। তারা স্বামী মোস্তাফিজুর রহমান যশোরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরে (এলজিইডি) চাকরি করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কুষ্টিয়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি নাসির উদ্দিন বলেন, স্কুল শিক্ষিকা রোকসানা খানম নিঃসন্তান ছিলেন। তার স্বামী যশোরে সরকারি চাকরি করেন। সেখানেই থাকেন তিনি। ২০১৩ সালে ভাই মারা যাওয়ার পর চার বছর বয়স থেকে নিশাতকে তার ফুফু নিজের কাছে নিয়ে যান এবং নিজ সন্তানের মতো লালনপালন করে বড় করেন। লেখাপড়া না করে তিনি অনলাইন জুয়া ও মাদক সেবন করতেন। এজন্য তাকে একটি মুদি দোকান করে দেন ফুফু। তারপরও নিশাত জুয়া ও মাদক সেবন করতেন। কিছুদিন আগে ফুফুর কিনে দেওয়া মোটরসাইকেল এক লাখ ৯০ হাজার টাকায় বিক্রি করে সেই টাকা নষ্ট করেন। বিষয়টি নিয়ে রোববার ফুফু-ভাতিজার মধ্যে কথা-কাটাকাটি এবং ঝগড়া হয়। এতে নিশাত ক্ষিপ্ত হয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টা থেকে ১টার দিকে শিল-পাটার নোড়া দিয়ে ঘুমন্ত ফুফুর মাথায় আঘাত করে হত্যা করেন।

তিনি আরো বলেন, কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং এস্টেট ডি ব্লক এলাকার ২৮৫ নম্বর ৬ তলা বিশিষ্ট বাড়ির মালিক নিহত রোকসানা। সেই বাড়ির দ্বিতীয় তলায় তিনি বসবাস করতেন। আর চার তলায় বসবাস করতেন নিশাত। ওই বাড়ির নিচতলায় মুদি দোকানে ব্যবসা করতেন নিশাত। জিজ্ঞাসাবাদে ফুফুকে নির্মমভাবে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তাকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী মোস্তাফিজুর রহমান বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করেছেন।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৭:২৮ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৮ নভেম্বর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]