বুধবার ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গরু বা মহিষ লাল রং দেখলেই রেগে তেড়ে আসে কেন জানেন কী?

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বুধবার, ০৯ নভেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

গরু বা মহিষ লাল রং দেখলেই রেগে তেড়ে আসে কেন জানেন কী?

গরু বা মহিষ গৃহপালিত প্রাণীদের মধ্যে সবচেয়ে পরিচিত প্রাণী। তবে এখন মহিষ একটু কম দেখা যায়। এই গরু বা মহিষ কিছু খুবই শান্ত থাকে। আবার কিছু প্রাণী কাছে গেলে রেগে তেড়ে আসে। আর এটা হওয়া স্বাভাবিক। তবে জানেন কি গরু বা মহিষ লাল রং দেখলেই রেগে তেড়ে আসে কেন?

গরু বা মহিষ লাল রং দেখলেই রেগে তেড়ে আসে, এর বৈজ্ঞানিক কারণ জানলে চমকে যাবেন! ষাঁড়ের লড়াই বা ‘বুলফাইটিং’ সম্পর্কে সবাই জানি। ষাঁড়ের চোখের সামনে এক সাহসী মানুষ বা ম্যাটাডোর লাল রঙের একটুকরো কাপড় নাড়াচাড়া করেন আর তা দেখে ষাঁড় তেড়ে আসে! এবার প্রশ্ন হলো, ষাঁড় কেন লাল কাপড় দেখে তেড়ে আসে?

ষাঁড়ের লড়াই বা বুলফাইটিংয়ে লাল রঙের কাপড় ব্যবহার করা হয় বলেই সবাই ধরে নেয়, ষাঁড় লাল রং দেখলে রেগে যায়। কিন্তু বিজ্ঞান বলছে অন্য কথা। তৃণভোজী প্রাণীরা লাল রং দেখতে পায় না। অর্থাৎ ওরা বর্ণান্ধ। গরুও তাই। যেহেতু গরু বা মহিষ লাল রং দেখতেই পায় না, তাই তা দেখে রেগে যাওয়ার প্রশ্নও ওঠে না।

গবাদিপশুদের চোখের রেটিনায় লাল রং গ্রহণ করার মতো ‘রিসেপ্টর’ নেই, অর্থাৎ, লাল রং গ্রহণ করার মতো ক্ষমতা ওদের চোখের রেটিনায় নেই প্রাকৃতিকভাবেই। গরু বা মহিষরা শুধু হলুদ, সবুজ, নীল ও বেগুনি রং দেখতে পায়। লাল রং শনাক্তের ‘কোন সেল’ না থাকায় এরা লাল রংটি দেখতে পায় না। এ অবস্থাকে বলা হয় প্রোটানোপিয়া। যার ফলে লাল রঙের কাপড়কে ওরা অনেকটা হলুদাভ ধূসর রঙের দেখে।

গরু বা মহিষের সামনে লাল রঙের কাপড় নাড়াচাড়া করলে তাদের চোখের সামনে আসলে হলুদাভ ধূসর রঙের এক কাপড়ই নড়ে ওঠে। এতে ষাঁড়ের মনে একধরনের বিভ্রম তৈরি হয়। কাপড়ের নড়নচড়ন ওদের রাগিয়ে তোলে, সেটা যে রঙের কাপড়ই হোক না কেন।

সূত্র: নিউজ ১৮

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৪:৫১ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ০৯ নভেম্বর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]