শনিবার ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খেরসন থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা রাশিয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

খেরসন থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা রাশিয়ার

ইউক্রেনের অধিকৃত খেরসন নগরী থেকে রুশ সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছেন রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু।

বুধবার (৯ নভেম্বর) রুশ সেনাদের পশ্চিম তীর থেকে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

সেপ্টেম্বরে যে চারটি ইউক্রেনীয় ভূখণ্ডকে রাশিয়া নিজেদের ভূখণ্ড বলে ঘোষণা করে খেরসন সেগুলোর একটি। ইউক্রেনে চলমান যুদ্ধে রাশিয়ার দখল করা একমাত্র প্রাদেশিক রাজধানী ও বৃহত্তম ভূখণ্ড হলো খেরসন। খেরসন প্রদেশের প্রাদেশিক রাজধানী হলো খেরসন শহর। ডিনিপ্রো নদীর পশ্চিম তীরে খেরসন শহরের অবস্থান।

রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সরাসরি আলোচনার মাধ্যমে খেরসন থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি। সেখানে খেরসন থেকে অঞ্চলটির পরিস্থিতি জানান জেনারেল সুরোভিকিন।

ইউক্রেনে রাশিয়ার কমান্ডার জেনারেল সের্গেই সুরোভিকিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী শোইগুকে জানান, তাদের পক্ষে খেরসন নগরীতে সমর রসদ সরবরাহ অব্যাহত রাখা আর সম্ভব হচ্ছে না।

বৈঠকে তিনি আরো বলেন, ‘‘এই পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বুদ্ধিমান বিকল্প হবে নিপ্রো নদীর অপর পাড়ে (পূর্বাঞ্চল) প্রতিরক্ষা গড়ে তোলা।”

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন খেরসন থেকে সেনা প্রত্যাহারের ওই আলোচনায় অংশ নেননি।

অথচ, গত সেপ্টেম্বর মাসের শেষ দিকে রাশিয়ার সঙ্গে খেরসনসহ ইউক্রেনের আরও চারটি অঞ্চলের সংযুক্তির ঘোষণা পুতিন নিজে দিয়েছিলেন।

খেরসন থেকে রুশ বাহিনী প্রত্যাহার করে নেয়ার অর্থ নিপ্রো নদীর পুরো পশ্চিম পাড় ‍রাশিয়ার দখলমুক্ত হওয়া।

খেরসন শহরের দিকে ইউক্রেনীয় সেনাদের অগ্রসর হওয়ার খবর বেশ কয়েকদিন ধরে পাওয়া যাচ্ছিল। ইউক্রেনীয় পাল্টা আক্রমণের আশঙ্কায় ইতোমধ্যে পশ্চিম তীর থেকে লক্ষাধিক বাসিন্দাকে সরিয়ে নিয়েছে রাশিয়া। এমন অবস্থায় শহরটি থেকে রুশ সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হলো।

জেনারেল সুরোভিকিন বলেন, আমাদের সেনাদের জীবন এবং ইউনিটগুলোর লড়াইয়ের সক্ষমতা আমরা রক্ষা করব। পশ্চিম তীরে তাদের মোতায়েন রাখার কোনও অর্থ হয় না। এসব সেনাদের অপর রণক্ষেত্রে মোতায়েন করা যাবে।

কয়েক মাস ধরে ডিনিপ্রো নদী পারাপার ব্যবস্থা লক্ষ্য করে হামলা চালিয়ে আসছে ইউক্রেন। এর ফলে পশ্চিম তীরে মোতায়েনকৃত সেনাদের রসদ সরবরাহে জটিলতার মুখে পড়েছে রাশিয়া। অক্টোবরের শুরু থেকেই ইউক্রেনীয় সেনারা ধীরে ধীরে অগ্রসর হচ্ছে। যদিও সম্প্রতি তাদের গতি মন্থর হয়েছে।

এদিকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা অল্প সময় আগে রাশিয়ার সংবাদমাধ্যম খেরসনে তাদের উপ-গভর্নর কিরিল স্ট্রেমোউসভের নিহত হওয়ার খবর জানায়। গাড়ি বিস্ফোরণে তিনি নিহত হন।

খেরসনে রাশিয়ার দখলদারিত্ব যারা দৃঢ়ভাবে সমর্থন করেছেন তাদের অন্যতম ছিলেন স্ট্রেমোউসভ। আগ্রাসী বক্তব্যের জন্য তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও পরিচিত মুখ হয়ে উঠেছিলেন।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৪:৩৫ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(291 বার পঠিত)
(219 বার পঠিত)
advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]