রবিবার ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দেশে দুর্ভিক্ষের কোনো আশঙ্কা নেই: খাদ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

দেশে দুর্ভিক্ষের কোনো আশঙ্কা নেই: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, ‘সরকারিভাবে প্রায় ১৭ লাখ মেট্রিক টন চাল মজুত আছে। আগাম প্রস্তুতি হিসেবে আরও ১০ লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানি করছি। তাই বাংলাদেশে কোনো খাদ্য ঘাটতি নেই এবং দুর্ভিক্ষ হওয়ার আশঙ্কা নেই।

বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) বিকেলে ঢাকার ধামরাইয়ের বাইশাকান্দা ইউনিয়নের খাগাইল এলাকায় অমৃতপাল ভক্তের স্মৃতি স্মরণে ১৭৪তম বাৎসরিক মহোৎসবে যোগ দিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেন, ‘আগাম প্রস্তুতি হিসেবে সরকারিভাবে ১০ লাখ মেট্রিক টন চাল আমরা আমদানি করেছি। বেসরকারিভাবেও চাল আমদানি হচ্ছে। বাংলাদেশে কোনো খাদ্য ঘাটতি নেই এবং দুর্ভিক্ষ হওয়ার কোনো আশঙ্কা নেই। সরকারিভাবে এখন আমাদের চাল মজুত আছে প্রায় ১৭ লাখ মেট্রিক টন।’

তিনি আরও বলেন, ‘গ্লোবাল মার্কেট ও ডলারের সঙ্গে সব জিনিসের দাম আপনাকে মেলাতে হবে। আপনি চালের দাম যখন জোর করে কমাতে যাবেন, তখন কৃষককে ৮০০ টাকায় ধান বিক্রি করতে হবে। তাহলে কৃষক তো আবাদ করবে না। আপনাকে এদিকেও লক্ষ রাখতে হবে। আপনি কৃষকের সন্তান। আপনি চিন্তা করেন, কৃষক যদি না বাঁচে, তাহলে কীভাবে হবে? আগে যেখানে ২৫২-৫৫ ডলারে আমরা গম কিনতাম বিদেশ থেকে, এখন সে গম কিনতে হয় প্রায় ৪৭৫ ডলার পার মেট্রিক টন। এদিকেও দেখতে হবে আপনাদের। এ ছাড়া ২ হাজার ৩৭০ ডিলারের মাধ্যমে আমরা ৩০ টাকা কেজি করে চাল দিচ্ছি প্রতিদিন। এটা সরকার ভর্তুকি দেয়। যারা নিম্ন আয়ের মানুষ, তাদের জন্য তো ৩০ টাকা কেজির চাল আছে। কাজেই অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। যারা অতিমাত্রায় ভালো সরু চাল খেতে চায়, তাদের ইনকামের অভাব নেই।’

সাধন চন্দ্র আরও বলেন, ‘পাশাপাশি আরেকটা জিনিস চিন্তা করতে হবে, এ দেশটা কৃষিপ্রধান দেশ। কৃষক বাঁচলে দেশ বাঁচবে। চালের দাম ২ টাকা বাড়লেই যে এক্কেবারে অস্থির হয়ে যান, এটা আপনাদের চিন্তা করতে হবে, একসময় মানুষ মজুরি পেত ৬০ টাকা। চালের দামও ছিল ৬০ টাকা। ২০০৭ সালে তা-ই ছিল। এক দিন খেটে মানুষ এক কেজি চাল কিনত। এখন এক দিন খাটলে আট কেজি চাল কিনতে পারে। মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এটাও আপনাদের হিসাবে রাখতে হবে।’

এ সময় ঢাকা-২০ আসনের সংসদ সদস্য বেনজীর আহমেদ, ধামরাই পৌর মেয়র গোলাম কবিরসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ২:০৯ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]