বুধবার ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জনগণের ভাগ্য নিয়ে কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   মঙ্গলবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

জনগণের ভাগ্য নিয়ে কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশের জনগণের ভাগ্য নিয়ে কেউ যেন ছিনিমিনি খেলতে না পারে তা নিশ্চিত করাই আমার দলের একমাত্র লক্ষ্য।
তিনি বলেন, আমাদের একটাই লক্ষ্য, এ দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে কেউ যেন ছিনিমিনি খেলা খেলতে না পারে।

গত ২৪ ডিসেম্বর দলের ২২তম কাউন্সিলের পর সোমবার সন্ধ্যায় তার সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সভাপতিমন্ডলীর প্রথম বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশের জনগণ অনেক কষ্ট করেছে এবং ভবিষ্যতে তাদের আর ভোগান্তি পোহাতে হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের একমাত্র লক্ষ্য দেশের মানুষ একটি সুন্দর, উন্নত ও সমৃদ্ধ জীবন পাবে এবং আমরা তা করতে চাই।

আওয়ামী লীগের কাউন্সিল হয়ে গেছে এবং দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কমিটির বাকি অংশ পূরণ করা হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই সংগঠন (আওয়ামী লীগ) আমাদের বড় শক্তি এবং এটা আমাদের মাথায় রাখতে হবে।

টানা দশমবার আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হওয়া শেখ হাসিনা বলেন, সংগঠনটি (আওয়ামী লীগ) শক্তিশালী থাকলে আমরা জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে সক্ষম হব। তাহলে সরকার পরিচালনা এবং দেশের উন্নয়ন করা কঠিন কাজ হবে না। এটাই হচ্ছে বাস্তবতা এবং আমরা এই বাস্তবতা নিয়ে আমাদের কাজ চালিয়ে যাব।

বাংলাদেশ এরইমধ্যে একটি ডিজিটাল দেশে পরিণত হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের লক্ষ্য— ২০৪১ সালের মধ্যে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ে তোলা।

তিনি আরো বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশে সমস্ত মানুষই হবে স্মার্ট মানুষ, ই-পিপল। আমরা এটা করতে চাই। ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে আমরা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে থাকবে এবং এটাই হচ্ছে বাস্তবতা।

আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে দেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করে স্যাটেলাইট যুগে প্রবেশ করেছে। অন্যদিকে মেট্রোরেল, যা একটি বৈদ্যুতিক ট্রেন, সেটি ২৮ ডিসেম্বর চালু করা হবে। কিন্তু, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে এসব কিছুই হতো না।

কর্ণফুলী নদীর তলদেশে একটি টানেল নির্মাণ করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সবচেয়ে বড় হচ্ছে পদ্মাসেতু, যা সরকারের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। আমরা সেই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছি এবং ঘোষণা করেছি, আমরা আমাদের নিজস্ব অর্থায়নে এটি করব। আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু নির্মাণ করেছি। আমরা কারো কাছ থেকে টাকা নিইনি। আমরা সেই যোগ্যতা অর্জন করেছি।

কোভিড-১৯ মহামারী এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এসব ধাক্কা না আসলে আমরা আজ বাংলাদেশকে আরো অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারতাম।

শেখ হাসিনা বলেন, বাঙালি জাতি এ পর্যন্ত যা পেয়েছে, তা আওয়ামী লীগের কাছ থেকে পেয়েছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৫:৪৮ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]