রবিবার ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

উজবেকিস্তানে শিশু মৃত্যু, ভারতের কাশির সিরাপ উৎপাদন স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শনিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

কাশির সিরাপ খেয়ে উজবেকিস্তানে ১৯ শিশুর মৃত্যুর পর ভারতের  ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি ‘ম্যারিয়ন বায়োটেক প্রাইভেট লিমিটেডে’র সব ওষুধ উৎপাদন বন্ধ করেছে কেন্দ্র সরকার। ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী গতকাল শুক্রুবার, নয়াদিল্লির কাছে অবস্থিত এই ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানির ওষুধ উৎপাদন স্থগিত করার কথা জানান। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয় টুইট করে একথা জানিয়েছেন।

এর আগে ভারতীয় ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান মেরিয়ন বায়োটেক প্রাইভেট লিমিটেডের তৈরি সিরাপ সেবন করার পর অন্তত ১৮ শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জানায় উজবেকিস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

 

উজবেকিস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়, ২১ জন শিশুর মধ্যে ১৮ জন শিশু, যাদের তীব্র শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা ছিল তারা ডক-১ ম্যাক্স সিরাপটি গ্রহণ করেছিল। সেবনের পর এই ১৮ জন শিশু মারা যায় বলে জানা গেছে। সর্দি এবং ফ্লুর উপসর্গ নিরাময়ে কম্পানির ওয়েবসাইটে এটি বাজারজাত করা হয়। সিরাপটির একটি ব্যাচে ইথিলিন গ্লাইকোল নামক উপাদান রয়েছে, যা বিষাক্ত বলে মন্ত্রণালয়  জানায়।

পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ওই কফ সিরাপে ইথাইল গ্লাইকলের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। উজবেকিস্তান সরকারের ওই অভিযোগ পাওয়ার পরই ভারত সরকার এই সিদ্ধান্ত নিলেন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয় শুক্রবারের টুইটে বলেছেন, ‘গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতেই ম্যারিয়ন বায়োটেকের নয়ডা ইউনিটের সব উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে। বাড়তি তদন্ত চলছে।

তিনি আরো বলেন,  কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ সংস্থা সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কনট্রোল অর্গানাইজেশন (সিডিএসসিও) ওই ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানিতে তল্লাশি চালিয়ে ওষুধ উৎপাদন বন্ধ ঘোষণা করে।

 

এই ঘটনায় ম্যারিয়ন বায়োটেকের অন্যতম শীর্ষকর্তা হাসান হ্যারিস বলেছেন, তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করছেন এবং এই প্রতিবেদন না আসা পর্যন্ত সব ধরনের ওষুধের উৎপাদন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

এর আগে গাম্বিয়ায় শিশু মৃত্যুর ঘটনায়ও ভারতে বানানো কফ সিরাপের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে। দিল্লি ভিত্তিক মেইডেন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের বানানো ঠাণ্ডা ও কাশির সিরাপ খেয়ে অন্তত ৭০ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এমনটাই দাবি করেছিল গাম্বিয়া। সিরাপ খেয়ে শিশুমৃত্যুর অভিযোগে ডাব্লিউএইচও সতর্কতা জারি করেছিল।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৭:৩৫ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(198 বার পঠিত)
(189 বার পঠিত)
advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]