মঙ্গলবার ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘটা করে বিয়ে, তবে রক্তমাংসের মানুষের নয় মূর্তির

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২৩ | প্রিন্ট

ঘটা করে বিয়ে, তবে রক্তমাংসের মানুষের নয় মূর্তির

অসম বিয়েতে মত দেয়নি দুই পরিবার। তাই ২০২২ সালে আগস্ট মাসে আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছিলেন গুজরাটের তাপির বাসিন্দা গণেশ এবং রঞ্জনা। এমন ঘটনা নতুন নয়। একবিংশ শতাব্দীতেও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কান পাতলেই শোনা যায় ফুল হয়ে ফুটে ওঠার আগেই এমন অসম প্রেম ঝরে যাওয়ার কাহিনী।

কখনো পাত্র-পাত্রীর ভিন্‌ ধর্মের বিয়ে মেনে নিতে পারে না দুই পরিবার। আবার কখনো ভিন্ন বর্ণে, ভিন্ন বিত্তের বিয়েতে আপত্তি থাকে। কখনো পরিবারের মধ্যে কারও সঙ্গে সম্পর্ক হলেও অশান্তি তুঙ্গে ওঠে। ঘটনার প্রেক্ষিত যেমনই হোক, এই অশান্তির আগুনে সব চেয়ে বেশি পুড়তে হয় বিয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া দুই পাত্র-পাত্রীকে।

শুরুর দিকে এমনটাই হয়েছিল গণেশ এবং রঞ্জনার সঙ্গে। তবে শেষটা কিন্তু একেবারেই ছকে বাঁধা গল্পের মতো হলো না। যে পরিবারের মানুষজন এক দিন এই বিয়েতে আপত্তি জানিয়েছিলেন, সেই মানুষগুলোই আবার হইহই করে তাদের বিয়ের আয়োজনে লেগে পড়লেন। মৃত্যুর ৬ মাস পর নিয়ম মেনে, ঘটা করে তাদের বিয়েও হলো, কিন্তু রক্তমাংসের গণেশ এবং রঞ্জনা নয়, তাদের আদলে বানানো মূর্তির।

রঞ্জনার দাদু ভীমসিংহ পাদভী বলেন, ‘দূর সম্পর্কের আত্মীয়ের সঙ্গে প্রেম করেছিল নাতনি। তাই আমরা এই বিয়েতে রাজি ছিলাম না। কিন্তু বেঁচে থাকতে ওদের চার হাত এক করে দিতে পারলাম না, তাই এই ভাবেই ওদের শেষ ইচ্ছেকে পরিণতি দিলাম। পরপারে যেন শান্তিতে একসঙ্গে থাকতে পারে ওদের বিদেহী আত্মা।’

সূত্র: আনন্দবাজার

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৭:৫১ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২৩

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]