মঙ্গলবার ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সব ব্যাপারে নাক গলান বয়ফ্রেন্ড?

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২৩ | প্রিন্ট

সব ব্যাপারে নাক গলান বয়ফ্রেন্ড?

মানুষের চাহিদার শেষ নেই! যেটুকু পাওয়া যায়, তাও সবকিছু মন মতো হয় না। কিছু কিছু সময় এমন মানুষের সঙ্গে পাল্লা পড়ে যে বের হওয়ার পথ পাওয়া যায় না। এই ধরুন আপনি একটি মানুষকে ভালোবাসলেন। সেই পুরুষটিও আপনাকে মন দিয়ে চান। তবে তার সম্পর্ক নিয়ে অনিশ্চয়তা আপনাকে পাগল করে দিচ্ছে।

আপনার একটা নিজের জীবন আছে। আপনি স্বাধীন দেশের স্বাধীন নাগরিক। তবে প্রেমিক হয়তো এই বিষয়টি ভুলে গিয়েছেন। তাই তিনি অহেতুক এমন কিছু কাজ করে যাচ্ছেন যা সমস্যা তৈরি করছে। এই যেমন আপনার সব ব্যাপারে নাক তিনি গলাচ্ছেন। এবার এমন মানুষের অভ্যাসে বদল প্রয়োজন।

বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন, প্রতিটি মানুষের ভাবনা চিন্তা আলাদা। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই পুরুষ মানুষ নিজের গার্লফ্রেন্ডের নানা সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করেন। তখন গণ্ডগোল বাধে। এই পরিস্থিতিতে সচেতন থাকার চেষ্টা করুন। সমস্যা হচ্ছে, অনেক নারীই বুঝতেই পারেন না এই অবস্থায় কী করা যেতে পারে। তাই আপনাকে অবশ্যই বিষয়টা নিয়ে সচেতন থাকার চেষ্টা করতে হবে। আসুন জানা যাক, এই সমস্যার সমাধান কীভাবে সম্ভব-

প্রথমেই মুখ বন্ধ করে দিন: প্রথম দিনেই বিড়ালের গলায় ঘণ্টা বাঁধতে হয়। তাহলে আর পরে সমস্যা দেখা যায় না। মাথায় রাখবেন, তিনি আজ যে এই কাজগুলো করছেন, তার পিছনে আপনারও দোষ রয়েছে। প্রথমদিনই যদি আপনি তার মুখ বন্ধ করে দিতেন, দেখতেন তিনি আর এই ধরনের ব্যবহার করার সাহস পেতেন না। তবে দেরি হলেও কাজটা করতে হবে। আজই প্রেমিককে বারণ করুন। আজ না শুনলেও, কাল তিনি শুনতে বাধ্য।

কেন অনিশ্চয়তা: প্রথমেই বুঝে নিতে হবে যে তিনি কেন অনিশ্চয়তায় ভুগছেন। আপনার কি কোথাও ভুল হচ্ছে? আপনি কি এমন কিছু করছেন যাতে সমস্যা তৈরি হয়? নাকি সমস্যাটা তার? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে নিতে হবে। তবেই সমস্যার সমাধান করে ফেলতে পারবেন। এবার থেকে এই দিকটা মাথায় রাখার চেষ্টা করুন। দেখবেন সুখে রয়েছেন দুজনেই।

তার সঙ্গে খোলাখুলি কথা বলুন: আপনি যে তার এই আচরণ মেনে নিতে পারছেন না, তা খোলাখুলি বলতে হবে। তাকে বোঝান, এমন অনিশ্চয়তা আপনাদের সম্পর্কের জন্য খারাপ। এভাবে চলতে থাকলে যে বিচ্ছেদও সম্ভব, এটা বলতে হবে। তবে উঁচু স্বরে কথা বলবেন না। বরং তাকে ধীরে ধীরে বোঝান। তিনি উতলা হলে শান্ত করুন। দেখবেন সব সমস্যা মিটেছে।

ফিরিয়ে দিন একই ব্যবহার: আপনার সব ব্যাপারে তিনি নাক গলান। এবার থেকে আপনি সেই ব্যবহার ফিরিয়ে দিন। নিউটনের তৃতীয় গতি সূত্রে এখানেও ফল পাবেন। আপনি যখনই তার বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবেন, তিনি মেনে নেবেন না। তখন আপনি নিজের অবস্থার কথা বলুন। চোখে হাত দিয়ে দেখিয়ে দিন পুরো পরিস্থিতি। তবেই সমস্যার সমাধান আপনি করতে পারবেন।

এমন সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে পারেন: আপনি অনেক চেষ্টা করছেন। চাইছেন ভালোবাসার পূর্ণতায় প্রেমিককে ভোলাতে। তবে অনেক ক্ষেত্রেই মানুষ নিজের মনোভাবের কারণে অনিশ্চয়তায় ভোগেন। এই পরিস্থিতিতে বেরিয়ে আসতে পারেন এমন সম্পর্ক থেকে। যখন এই ব্যবহার সহ্য করতে পারছেন না, তখন আর অপেক্ষা করে কী হবে! বরং বিচ্ছেদই সঠিক রাস্তা। শান্তিতে বাঁচতে পারবেন অন্তত।

সূত্র: এই সময়

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৬:৩৬ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২৩

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]