মঙ্গলবার ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মায়ের গর্ভেই শিশুর মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শুক্রবার, ০৫ মে ২০২৩ | প্রিন্ট

মায়ের গর্ভেই শিশুর মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার

চিকিৎসা বিজ্ঞানে দিন দিন আবিস্কার হচ্ছে অনেক নতুন প্রযুক্তি। চিকিৎসা বিজ্ঞানের কল্যাণে উন্নত চিকিৎসার সুফল পাচ্ছেন মানুষ। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলো আরো একটি বিপ্লবী অস্ত্রোপচার।

মায়ের গর্ভেই অনাগত শিশুর মস্তিষ্কে জটিল অস্ত্রোপচার করলেন চিকিৎসকরা। চিকিৎসকদের অদম্য প্রচেষ্টায় মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার করলেন যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসকরা।ঘটনাটি ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনের এক হাসপাতালে। মায়ের গর্ভে শিশুর মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার বিশ্বে প্রথম।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ধরা পড়ে, মায়ের গর্ভে থাকা ওই শিশুর মস্তিষ্কের রক্তনালীতে সমস্যা রয়েছে। মস্তিষ্কের এই সমস্যাকে বলে ‘ভেনাস অব গ্যালেন ম্যালফরমেশন’। মস্তিষ্ক থেকে যেসব রক্তনালী হৃৎপিণ্ডে রক্ত পৌঁছে দেয়, সেগুলো সঠিকভাবে গঠিত না হলে এই সমস্যা তৈরি হয়। এর ফলে রক্তনালী এবং হৃৎপিণ্ডে চাপ পড়ে, যা একাধিক শারীরিক সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।

বোস্টনের ওই হাসপাতালের চিকিৎসক ডারেন অরবাক জানিয়েছেন, এই শারীরিক অবস্থার ক্ষেত্রে জন্মের পরেই শিশুর হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। মস্তিষ্কে আঘাত লাগতে পারে, এমনকি মৃত্যু পর্যন্তও হতে পারে।

চিকিৎসকরা জানান, এই শারীরিক অবস্থার ক্ষেত্রে জন্মের পরে মস্তিষ্কের রক্তনালীতে ক্যাথিটারের মাধ্যমে এক ধরনের কয়েল প্রবেশ করানো হয়। এর ফলে রক্তপ্রবাহ কমে। যদিও বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এই চিকিৎসায় দেরি হয়ে যায়। সেক্ষেত্রে শারীরিক জটিলতা তৈরি হয় শিশুটির।

এই শারীরিক সমস্যা নিয়ে জন্মানো শিশুদের ৫০ থেকে ৬০ শতাংশই অসুস্থ হয়ে পড়ে। এই ধরনের শিশুদের মৃত্যুর হার ৪০ শতাংশ। যারা বেঁচে থাকে, তাদের স্নায়ুর সমস্যা দেখা দেয়।

গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, মায়ের গর্ভে স্বাভাবিকভাবেই বেড়ে উঠছিল শিশুকন্যা ডেনভার। আলট্রাসাউন্ড করার সময় জানা যায়, তার মস্তিষ্কের রক্তনালীতে সমস্যা রয়েছে। অনেক শিশুই গর্ভস্থ থাকার সময় এই রোগে আক্রান্ত হয়। জন্মের পর তাদের অনেকেই আর বাঁচে না। ডেনভারেরও হার্টের সমস্যা দেখা দিয়েছিল। রক্তনালীর সমস্যা আরও বৃদ্ধি পাচ্ছিল। গর্ভে থাকার সময় ৩৪ সপ্তাহে ডেনভারের মস্তিষ্কের অস্ত্রোপচার করেন চিকিৎসকেরা। ইউটেরাসে থাকা অবস্থায় আল্ট্রাসাউন্ডের সাহায্য নিয়ে রক্তনালীর অস্ত্রোপচার করা হয়। এখন সুস্থ আছে শিশুটি।

জানা গেছে, সফল অস্ত্রোপচারের দুই দিন পর ওই নারীর সন্তান প্রসব করান চিকিৎসকরা। জন্মের সময় ওই শিশুর ওজন ছিল ৪.২ পাউন্ড বা এক কেজি ৯০০ গ্রাম, যা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশ কম। তবে তার স্নায়ুগত সমস্যাগুলো খুবই সীমিত ছিল। জন্মের তিন সপ্তাহ পরে, শিশুটির কোনও কার্ডিওভাসকুলার সহায়তার প্রয়োজন হয়নি। এমআরআই স্ক্যানেও মস্তিষ্কে অস্বাভাবিক রক্ত প্রবাহের কোনও চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

সূত্র: সিএনএন

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৮:১১ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ০৫ মে ২০২৩

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(239 বার পঠিত)
(204 বার পঠিত)
advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]