সোমবার ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারত-ইউরোপীয় ইউনিয়ন জোটের সুবিধাভোগী হতে পারে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শনিবার, ১০ জুন ২০২৩ | প্রিন্ট

ভারত-ইউরোপীয় ইউনিয়ন জোটের সুবিধাভোগী হতে পারে বাংলাদেশ

পারস্পরিক নির্ভরশীলতা আর সহযোগিতায় বিশ্ব এখন হয়ে উঠেছে গ্লোবাল ভিলেজ। যেখানে বাড়তি সুবিধা আদায়ে জোটবদ্ধ অনেক দেশ। আঞ্চলিক এই সম্প্রীতির লক্ষ্য কখনও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আবার কখনও রাজনৈতিক মোড়লগিরি। এরই একটি ভারত-ইউরোপীয় ইউনিয়ন কানেক্টিভিটি।

বৃহত্তম বাণিজ্যিক সঙ্গী হিসেবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে ১৯৯৪ সালে যাত্রা শুরু করে ভারত। কৌশলগত নানা পথ মাড়িয়ে এই দ্বিপাক্ষিক জোটের এবারের লক্ষ্য আঞ্চলিক যোগাযোগ বৃদ্ধি।

এই আঞ্চলিক জোটকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশও হয়ে উঠতে পারে সুবিধাভোগী। ভৌগোলিক অবস্থানের কারণেই এটি সম্ভব বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সরাসরি কোনো জোটের অংশ না হয়েও বাণিজ্যিক দিক থেকে সম্ভাবনার দুয়ার খোলা বাংলাদেশের। এ জন্য সুদূরপ্রসারী কর্মকৌশল সাজাতে হবে বলে মত ব্যবসায়ী নেতাদের।

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) সভাপতি ব্যারিস্টার সামির সাত্তার সময় সংবাদকে বলেন, ভারত ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন উভয়ই বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের বৃহৎ বাণিজ্যিক সহযোগী। ভারত-ইউরোপীয় ইউনিয়ন ৫ বছরমেয়াদি যে কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করেছে সেখানে বাংলাদেশ চাইলে তার অংশীদার হতে পারেন। দেশের পণ্যকে আন্তর্জাতিক বাজারে আরও ভালো দামে রফতানি সম্ভব, সে লক্ষ্যেই কাজ করছে সরকার।

চলতি মাসের শুরুতে ভারতের মেঘালয়ে ভারত-ইউরোপীয় ইউনিয়ন কানেক্টিভিটি জোটের দুদিনব্যাপী সম্মেলনে স্বাস্থ্য ও পৃথিবীর সুরক্ষা, বাণিজ্য বৃদ্ধি ও নিরাপদ-সমৃদ্ধ-সমতার বিশ্বায়ন-নীতিগুলোকে সামনে রেখে ২০২১ সালে এই জোটের হাতে নেয়া কৌশল বাস্তবায়নের পথে ‘নেইবারহুড ফার্স্ট পলিসি’তে তুলে ধরা হয় কীভাবে এর সুবিধা পাবে নেপাল, ভুটান ও বাংলাদেশ।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে খেয়াল রাখতে হবে এক জোটের সুবিধা নিতে গিয়ে যেন নাখোশ না হয় আরেক জোট। অর্থনীতিবিদ এম এম আকাশ সময় সংবাদকে বলেন, ভূরাজনৈতিক কারণে বাংলাদেশের কোনো জোটে জড়ানোর কথা নয়। ভারতের পাশাপাশি চীনকেও গুরুত্ব দিতে হবে, যাতে কোনো কিছু একপাক্ষিক না হয়ে যায়। সবার কাছ থেকে সুবিধা নিয়ে বাণিজ্যিকে প্রসারিত করাই মূল লক্ষ্য।

২০১৩ সালে ১৫০টি দেশ ও বহু আন্তর্জাতিক জোটের সমন্বয়ে চীনের নেয়া কৌশল বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ এগিয়েছে অনেক দূর। বাংলাদেশও বিশ্বকে একসুতায় গাঁথার এই উদ্যোগের অন্যতম সুবিধাভোগী।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৪:৫৩ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ১০ জুন ২০২৩

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]