সোমবার ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জে জোড়া খুনের ঘটনায় গ্রেফতার ১০

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | প্রিন্ট

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে জোড়া খুনের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ভয়ভীতি প্রদর্শন, চুরি ও চোরদের চিনে ফেলায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়।

রোববার বিকেলে চাঁদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের হলরুমে এ প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মো. সোহাগ হোসেন ওরফে সোহাগ মুন্সি, মিজান ওরফে গোলাম আজম ওরফে মো. মিজান হোসেন, মাসুদ রানা, শ্যামল চন্দ্র শীল, মো. আলমাস, মো. নেছার আহম্মেদ, মো. রাকিব হোসেন, মো. রাশেদ ওরফে রাসেল, মাসুদ কামাল এবং শাহ আলম ওরফে বাবুল।

গ্রেফতারকৃত আসামিদের মধ্যে মো. সোহাগ হোসেন ওরফে সোহাগ মুন্সি এবং মিজান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায় জানান, এ মামলায় পুলিশ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে। তাদের মধ্যে দুইজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারীসহ কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। পরিকল্পনাকারীদের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদেরও গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ভয়ভীতি প্রদর্শন, চুরি ও চোরদের চিনে ফেলায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে, নাকি অন্য কারণ আছে তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গত ৮ সেপ্টেম্বর অনুমানিক রাত ১টার দিকে আসামি নেসার ওরফে নাসির সঙ্গে মিজানকে নিয়ে বাবুলদের বাড়িতে যান। পরবর্তীতে বাবুল, মাসুদ, সোহাগ দুলাল সাহার কেয়ারটেকার উত্তম চন্দ্র বর্মণ ওরফে তুফান এবং তার স্ত্রীকে ভয় দেখিয়ে ঘর থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা মতো মাসুদ কাটার দিয়ে ঘরের পূর্ব পার্শ্বের জানালার গ্রিল কেটে ঘরে প্রবেশ করে দরজা খুলে দেন। পরে বাইরে থেকে মিজান, রাকিব, নাসির ওরফে নেসার, শ্যামল, আলমাস ঘরের ভেতর প্রবেশ করেন। এরপর উত্তম চন্দ্র বর্মণ ওরফে তুফান এবং তার স্ত্রী কাজলী রাণী বর্মণকে টিভি দেখা অবস্থায় পেয়ে তাদের হাত-পা বেঁধে ফেলেন। আলমাস কাপড় দিয়ে উত্তম চন্দ্র বর্মণের মুখ চেপে ধরে অন্য ঘরে নিয়ে যান।

পরবর্তীতে রাকিব, মাসুদ, আলমাস উত্তম চন্দ্র বর্মণের স্ত্রী কাজলী রাণী বর্মণকে মুখ চেপে ধরেন। পরে ঘরের ভেতর থাকা রাকিব, শ্যামল, আলমাস, মাসুদ চন্দ্র বর্মণ এবং কাজলী রাণী বর্মণকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। এরপর ঘরের ভেতরে থাকা বিভিন্ন জিনিস নিয়ে যান।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ২:৫৮ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]