সোমবার ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পূর্ণাঙ্গ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ০৫ অক্টোবর ২০২৩ | প্রিন্ট

পূর্ণাঙ্গ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

কানাডার মাটিতে শিখ নেতা হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যার ঘটনায় ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার জড়িত থাকার অভিযোগকে আবারও ‘গুরুতর’ উল্লেখ করে এর ‘পূর্ণাঙ্গ তদন্ত’ চেয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, তারা অতীতে কানাডাকে তদন্তে সহায়তার জন্য প্রকাশ্যে ও গোপনে ভারত সরকারকে বলেছে। এ প্রেক্ষাপটে কানাডা ও ভারতের মধ্যে সম্পর্কের তিক্ততা আরও বেড়েছে। চলতি সপ্তাহে কানাডার আরও ৪১ কূটনীতিককে দিল্লি থেকে সরিয়ে নিতে বলেছে ভারত।

 

শিখ নেতা হত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনার মধ্যে গত সপ্তাহে ওয়াশিংটন সফর করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। সে সময় যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভানের সঙ্গে তাঁর বৈঠক হয়। গতকাল বুধবার ইন্ডিয়া টুডে জানায়, বৈঠকে তাদের মধ্যে শিখ নেতা নিজ্জার হত্যাকাণ্ড নিয়ে আলোচনা হয়েছে। পরে বৈঠক প্রসঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের কৌশলগত যোগাযোগবিষয়ক সমন্বয়ক জন কিরবি বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ওই দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের স্বার্থে বিষয়টি আলোচনার জন্য তাদের ওপর ছেড়ে দিয়েছি।’ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটি পরিষ্কার– অভিযোগ গুরুতর। পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হওয়া উচিত। আমরা আগেও বলেছি, তদন্তে সক্রিয়ভাবে ভারতের উপস্থিতি আমরা চাই।

 

পৃথক সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপমুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল বলেন, তারা অতীতে প্রকাশ্যে ও গোপনে ভারত সরকারকে কানাডার তদন্তে সহায়তার জন্য বলেছেন। তিনি বলেন, ‘ভারত যুক্তরাষ্ট্র কোয়াডসহ বিভিন্ন জোটের অংশীদার। গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোতে আমরা ভারত এবং ওই অঞ্চলের অন্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করে যাব। তবে আমাদের বক্তব্য পরিষ্কার– অভিযোগ অত্যন্ত গুরুতর এবং এ জন্য আমরা শুধু আমাদের কানাডীয় অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করব না; ভারতকে বলব, তারা যেন সহযোগিতা করে।’

গত ১৮ জুন কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার সারেতে একটি গুরুদুয়ারার বাইরে গুলিতে নিহত হন খালিস্তানপন্থি শিখ নেতা হরদীপ সিং নিজ্জার। তাঁর মৃত্যু কানাডা ও ভারতের মধ্যে নজিরবিহীন কূটনৈতিক দ্বন্দ্বের জন্ম দেয়। গত মাসে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো পার্লামেন্টে দাবি করেন, তাদের কাছে বিশ্বস্ত প্রমাণ আছে যে নিজ্জার হত্যায় ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস উইং (আরএডব্লিউ) বা ‘র’ জড়িত। ভারত এ অভিযোগ জোরালোভাবে অস্বীকার করেছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৬:৫৩ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৫ অক্টোবর ২০২৩

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(237 বার পঠিত)
(204 বার পঠিত)
advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]