শুক্রবার ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লক্ষ্মীপুরে চাঁদাবাজির মামলায় ২ ইউপি সদস্য কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০২৪ | প্রিন্ট

লক্ষ্মীপুরে চাঁদাবাজির মামলায় ২ ইউপি সদস্য কারাগারে

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরের চরকাদিরা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য নুরুল্লাহ খালেদ ও নিজাম উদ্দিনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। রফিক উল্যা নামের এক ভূমিহীনকে খাস জমি থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা ও তিন লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগের মামলায় তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

রোববার দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক ভিক্টোরিয়া চাকমা এ নির্দেশ দেন। রাত ৮টার দিকে আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) প্রদীপ শীল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নুরুল্লাহ খালেদ চরকাদিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খালেদ সাইফুল্লাহর ছেলে এবং ওই পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান। আর নিজাম উদ্দিন একই ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। মামলার বাদী রফিক উল্যা চরকাদিরা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ চরকাদিরা গ্রামের বাসিন্দা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভূমিহীন রফিক উল্যাকে দক্ষিণ চরকাদিরা মৌজার দিয়ারা খতিয়ানের ৪৭৭ দাগে পাঁচ শতাংশ জমি বন্দোবস্ত করে দেয় সরকার। আরো কিছু জমিসহ প্রায় ১৭ বছর ধরে তিনি সেখানে বসবাস করে আসছেন। পাশেই ৯৪৫ দাগে আরো ৩২ শতাংশ জমি বন্দোবস্তের জন্য তিনি জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেন। কিন্তু চর পাগলা গ্রামের আজিজুল হক, তার দুই ছেলে মিরাজ হোসেন ও ফিরোজ হোসেন এবং চরজাঙ্গালিয়া গ্রামের তোফায়েল আহমেদ দীর্ঘদিন ধরে রফিক উল্যাকে ওই জমি থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা করে আসছেন। ওই জমিতে থাকতে হলে তারা রফিকের কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এর মাঝে ২০২৩ সালের ১৫ আগস্ট ঘটনাস্থলে গিয়ে তারা চাঁদা দাবি করেন। প্রতিবাদ করলে রফিক উল্যাকে ওইদিন মারধর করা হয়। তখন তার ঘরে থাকা এনআইডি কার্ড ও বয়স্ক ভাতার বই নিয়ে যান তারা।

পরবর্তীতে ঘটনাটি ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান নুরুল্লাহ খালেদকে জানালে ঘটনাটির বিচার করবেন জানিয়ে ইউপি সদস্য নিজাম উদ্দিনসহ কয়েকজনের মাধ্যমে রফিকের কাছ থেকে অলিখিত নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে সই নেন।

পরে রফিক উল্যাকে গ্রাম ছাড়াসহ খুনের হুমকিও দেওয়া হয়। এ ঘটনায় গত বছরের ১৬ অক্টোবর আজিজুল হক, নুরুল্লাহ খালেদ, আজিজুল হকের দুই ছেলে মিরাজ হোসেন ও ফিরোজ হোসেন এবং তোফায়েল আহমেদকে আসামি করে আদালতে মামলা দায়ের করেন রফিক উল্যা। পরবর্তীতে মামলার তদন্তে নিজামের নামও এজাহারভুক্ত হয়। মামলার অন্য আসামিরা আদালত থেকে জামিন নিলেও নুরুল্লাহ খালেদ ও নিজাম উদ্দিন জামিন নেননি।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৮:২৬ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০২৪

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]