রবিবার ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্যাংক ঋণের সুদ আরো বাড়ল

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | প্রিন্ট

ব্যাংক ঋণের সুদ আরো বাড়ল

ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন থেকে ব্যাংকগুলো নতুন ঋণের সুদের হার আরো বাড়াতে পারবে। একই সঙ্গে যেসব ঋণ বিতরণের পর থেকে ছয় মাস উত্তীর্ণ হয়েছে সেগুলোর সুদ হারও বাড়াতে পারবে। সরকারি খাতের ছয় মাস মেয়াদি ট্রেজারি বিলের গড় সুদের হার জানুয়ারি মাসে বেড়ে যাওয়ায় ব্যাংকগুলোও এখন ঐ সুদ হার বাড়াতে পারবে।

সূত্র জানায়, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঘোষিত নতুন নীতিমালা অনুযায়ী ছয় মাস মেয়াদি ট্রেজারি বিলের গড় সুদের হার ডিসেম্বরে ছিল ৮ দশমিক ১৪ শতাংশ। জানুয়ারিতে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৬৮ শতাংশ। এক মাসের ব্যবধানে এর সুদ হার বেড়েছে দশমিক ৫৪ শতাংশ। ফলে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো আগের ঋণের সঙ্গে ঐ হারে সুদ হার বাড়াতে পারবে। একই সঙ্গে নতুন যেসব ঋণ দেবে সেগুলোর সুদও ঐ হারে বাড়াতে পারবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী ছয় মাস মেয়াদি ট্রেজারি বিলের গড় সুদের হারের সঙ্গে ৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ যোগ করে নতুন ঋণের সুদের হার নির্ধারণ করতে হবে। বর্তমানে ছয় মাস মেয়াদি ট্রেজারি বিলের গড় সুদ হার ৮ দশমিক ৬৮ শতাংশ। এ হিসাবে ঋণের সুদ হার দাঁড়ায় ১২ দশমিক ৪৩ শতাংশ।

রফতানি খাতের প্রি-শিপমেন্ট ঋণ, পল্লী ও কৃষি ঋণের সুদের হার নির্ধারণের ক্ষেত্রে ছয় মাস মেয়াদি ট্রেজারি বিলের গড় সুদের হারের সঙ্গে সর্বোচ্চ ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ যোগ করে নতুন ঋণের সুদ নির্ধারণ করতে হবে। এ হিসাবে এসব খাতে ঋণের সর্বোচ্চ সুদ হবে ১১ দশমিক ৪৩ শতাংশ।

ঋণের সুদের হার বাড়ার কারণে ব্যাংকগুলো আমানতের সুদ হারও বাড়াতে পারবে। কারণ আমানতের সুদ হারের কোনো সীমা নেই। আগে যেটি ছিল তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। ফলে ব্যাংকগুলো ঋণের সুদ বাড়ানোর সঙ্গে আমানতের সুদ হারও বাড়াতে পারবে।

আগে যেসব ঋণ বিতরণ করা হয়েছে সেগুলোর মধ্যে যেসব ঋণের মেয়াদ ছয় মাস অতিক্রম হয়েছে সেগুলোর সুদ নতুন হারে বাড়ানো যাবে। তবে যেসব ঋণের মেয়াদ ছয় মাসের কম রয়েছে সেগুলোর সুদ বাড়ানো যাবে না।

ব্যাংকের পাশাপাশি আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোও ঋণ ও আমানতের সুদ বাড়াতে পারবে। এসব প্রতিষ্ঠান ছয় মাস মেয়াদি ট্রেজারি বিলের গড় সুদের হারের সঙ্গে ঋণ বা লিজের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশ যোগ করতে পারবে। সে হিসাবে সুদের সর্বোচ্চ হার হবে ১৪ দশমিক ৪৩ শতাংশ। আমানতের ক্ষেত্রে তারা সর্বোচ্চ ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ যোগ করতে পারবে। এ হিসাবে আমানতের সর্বোচ্চ সুদ হবে ১১ দশমিক ৪৩ শতাংশ।

এসব প্রতিষ্ঠানও নতুন ঋণ ঐ হারে বিতরণ করতে পারবে। যেসব ঋণের মেয়াদ ছয় মাস অতিক্রম হয়েছে সেগুলোর সুদ নতুন হারে বাড়াতে পারবে।

আইএমএফের শর্ত অনুযায়ী কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুদের হারের একটি করিডোর তৈরি করেছে। সে অনুযায়ী ছয় মাস মেয়াদি ট্রেজারি বিলের গড় সুদের হারের সঙ্গে নির্দিষ্ট অংকের সুদ যোগ করে ঋণ বা আমানতের সুদ হার নির্ধারণ করতে হচ্ছে। এ কারণে প্রতি মাসে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ট্রেজারি বিলের গড় সুদের হার ঘোষণা করছে। এর আলোকে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ঋণ ও আমানতের সুদ হার নির্ধারণ করছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৫:৩৫ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]