মঙ্গলবার ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মস্কোয় হামলাকারীদের কী সাজা দেবে রাশিয়া?

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪ | প্রিন্ট

মস্কোয় হামলাকারীদের কী সাজা দেবে রাশিয়া?

তখন রাত আটটা ছুঁই ছুঁই। সংগীতপ্রেমী দর্শক-শ্রোতায় সবে ভরে উঠতে শুরু করেছে ক্রোকাস সিটি হল। শুক্রবারের রাতটি জমে ওঠার কথা বিখ্যাত ব্যান্ড দল ‘পিকনিক’-এর পরিবেশনায়।

দেভ প্রাইমভ একজন আলোকচিত্রী। ওই রাতে মস্কোয় কনসার্টে ভয়ানক হামলার আগমুহূর্তে হলটির ওপরতলার এক বারান্দায় ছিলেন তিনি। বন্দুকধারী হামলাকারীদের চালানো তাণ্ডবের তিনি একজন প্রত্যক্ষদর্শী। দিচ্ছিলেন সেই হামলার বর্ণনা, ‘বাদামি রঙের পোশাক পরা কিছু লোক আসে। তারা কি সন্ত্রাসী, নাকি সামরিক বাহিনীর সদস্য,চিনলাম না। যারাই হোক, মিলনায়তনে ঢুকে পড়ে। শুরু করে দর্শকদের ওপর অ্যাসল্ট রাইফেল দিয়ে গুলি ছোড়া।

মিলনায়তনে ঢোকার আগে দর্শকদের ঘিরে বন্দুকধারীরা থিয়েটারের বাইরে হাঁটতে থাকে। পরে ছুড়তে থাকে এলোপাতাড়ি গুলি। শুরু হয় আতঙ্ক, চিৎকার-চেঁচামেচি। গুলিতে একে একে মারা পড়তে থাকেন অনেকে। অনেকে আবার আহত হয়ে কাতরানো শুরু করেন। এইভাবে দর্শকভর্তি হলঘর পরিণত হলো হত্যাকাণ্ডের মঞ্চে। ভয়াবহ এই হামলায় ১৩৭ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো শতাধিক। এ সন্ত্রাসবাদে সঙ্গে জড়িত চারজনকে এরই মধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। যার মধ্যে দুই সদস্য হামলার কথা স্বীকার করেছেন। রোববার (২৫ মার্চ) রাশিয়ার একটি আদালতে হাজির করা হয় তাদের। সেই ভিডিও প্রকাশ করেছে বিভিন্ন গণমাধ্যম।

আদালতের ছবি ও ভিডিওতে চার সন্দেহভাজনকে পুরোপুরি বিধ্বস্ত অবস্থায় দেখা গেছে। চেহারাতেই স্পষ্ট, তাদের ওপর ভয়ানক নির্যাতন চালানো হয়েছে। প্রত্যেকের মুখেই ছিল মারাত্মক জখমের চিহ্ন। এমনকি, একজনকে আদালতে আনা হয়েছিল হুইলচেয়ারে বসিয়ে।

হামলাকারীদের পরিচয়

রুশ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অভিযুক্ত চারজনের নাম দালেরদজন মিরজোয়েভ (৩২), সাইদাক্রমি মুরোদালি রাচাবালিজোদা (৩০), শামসিদিন ফরিদুনি (২৫) এবং মুহাম্মাদসোবির ফয়জভ (১৯)। তারা চারজনই তাজিকিস্তানের নাগরিক বলে দাবি করা হয়েছে।

মিরজোয়েভ এবং রাচাবালিজোদা নামে আদালত যে ব্যক্তিদের চিহ্নিত করেছে, তাদের চোখের চারপাশে গভীর কালো রঙ দেখা গেছে। দ্বিতীয়জনের কানে মোটা ব্যান্ডেজ লাগানো ছিল। গ্রেফতারের সময় তার কান আংশিকভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় বলে জানা গেছে।

মিরজোয়েভের গলায় একটি ছেঁড়া প্লাস্টিকের ব্যাগ জড়ানো দেখা গেছে। ফরিদুনি নামে পরিচয় দেওয়া ব্যক্তির মুখের একাংশ অনেকখানি ফুলে ছিল। ফায়জভ নামের লোকটিকে হাসপাতালের পাতলা গাউন পরা অবস্থায় হুইলচেয়ারে বসিয়ে আদালতে হাজির করা হয়েছিল। এসময় তিনি অজ্ঞান ছিলেন।

অভিযুক্ত শামসিদিন ফরিদুনি এবং মুহাম্মাদসোবির ফয়জভকে আদালতে নেয়ার পর

অভিযুক্ত শামসিদিন ফরিদুনি এবং মুহাম্মাদসোবির ফয়জভকে আদালতে নেয়ার পর

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবর অনুসারে, ফায়জভ একটি চোখ হারিয়েছেন।

সংবাদমাধ্যম এএফপি জানিয়েছে, অভিযুক্ত চারজনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে। তাদের আগামী ২২ মে পর্যন্ত বন্দি রাখার আদেশ দিয়েছেন রুশ আদালত। তবে অভিযুক্তদের বিচারের তারিখ কখন নির্ধারিত হবে তার ওপর ভিত্তি করে এর সময় আরো বাড়ানো হতে পারে। মস্কোর বাসমানি জেলা আদালতের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চার আসামিই যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের ঝুঁকিতে রয়েছেন।

আদালত বলেছে, দুই আসামি এরই মধ্যে দোষ স্বীকার করেছেন। তাদের মধ্যে একজন ‘সম্পূর্ণভাবে নিজের অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন’।

হামলার নেপথ্যে কারা

রুশ কর্মকর্তারা আগেই জানিয়েছিলেন, কনসার্ট হলে হামলার ঘটনায় গ্রেফতার চারজনই বিদেশি। রুশ গণমাধ্যমের খবর অনুসারে, তারা তাজিকিস্তানের নাগরিক। আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী দেশ তাজিকিস্তানে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস এখনো বেশ সক্রিয়। মস্কোয় গত শুক্রবারের হামলার দায়ও স্বীকার করেছে গোষ্ঠীটির আফগান শাখা বলে পরিচিত ইসলামিক স্টেট-খোরাসান বা আইএসআইএস-কে।

তবে ক্রেমলিন দাবি করেছে, ক্রোকাস সিটি হলের ওই কনসার্টে বন্দুক হামলা ও বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িত অপরাধীদের সঙ্গে ইউক্রেনের যোগাযোগ ছিল এবং হামলার পর বন্দুকধারীরা ইউক্রেনেই পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন।

রুশ বার্তা সংস্থা তাস জানায়, হামলার পর অপরাধীরা রাশিয়া-ইউক্রেন সীমান্ত অতিক্রম করতে চেয়েছিলেন ও ইউক্রেনের সঙ্গে তাদের ভালো যোগাযোগ ছিল। একই অভিযোগ করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৮:৩৩ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(290 বার পঠিত)
(217 বার পঠিত)
advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]