রবিবার ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদের সিনেমায় এগিয়ে রাজকুমার, অন্যগুলো চলছে কেমন?

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | প্রিন্ট

ঈদের সিনেমায় এগিয়ে রাজকুমার, অন্যগুলো চলছে কেমন?

এবারের ঈদুল ফিতরে দেশের দুই শতাধিক সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে ১১টি সিনেমা। এ ছাড়া মাল্টিপ্লেক্স চেইন স্টার সিনেপ্লেক্সের সাতটি শাখায় প্রদর্শিত হচ্ছে আটটি বাংলা সিনেমা। বরাবরের মতো ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খান হল সংখ্যার দিক থেকে এগিয়ে আছেন। তার অভিনীত ‘রাজকুমার’ সিনেমা মুক্তি পেয়েছে সর্বোচ্চ ১২৬ হলে। হিমেল আশরাফ পরিচালিত এ ছবিতে শাকিব খানের নায়িকা কোর্টনি কফি।

সিনেমাটি সিঙ্গেল স্ক্রিনে সর্বাধিক হল পেলেও মাল্টিপ্লেক্সে ‘দেয়ালের দেশ’র চেয়ে কম শো পায়। তবে ঈদের আগের দিন থেকেই অগ্রিম টিকিট বিক্রি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শাকিব ভক্তরা জানান দিয়েছে, ‘রাজকুমার’ এবার কতটা দাপট নিয়ে প্রেক্ষাগৃহে রাজত্ব করবে। অগ্রিম টিকিট বিক্রির শুরুর কিছু সময় পরেই সব টিকিট বিক্রি হয়ে যায়। দর্শক চাপে আগের শোর সঙ্গে সনি স্কয়ারে একটি, বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে দুটি এবং রাজশাহীতে বাড়ানো হয় একটি শো। সব মিলিয়ে সিনেপ্লেক্সে ‘রাজকুমার’ সিনেমার মোট শো দাঁড়ায় ১৭টি।

সিনেপ্লেক্সের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, ঈদের সিনেমা রাজকুমারের অগ্রিম টিকিট বিক্রির হার অন্য সব ছবির চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। ঈদের চতুর্থ, পঞ্চম দিনও পরের দিনের সব টিকেট শেষ। দর্শক চাহিদা এমন থাকলে আগামীতে আরও শো বাড়ানো হবে। তিনিই জানালেন, সিনেপ্লেক্সে বাংলা ছবির মধ্যে শীর্ষে রয়েছেন শাকিবের রাজকুমারই। পরের সিরিয়ালে অন্যান্য সিনেমা।

অন্যদিকে ঐতিহ্যবাহী হল মধুমিতার কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বললেন, তার মধুমিতাতে শাকিব খানের ছবি মানেই উৎসবের আমেজ। সিঙ্গেল স্ক্রিনগুলোতে শাকিব খানের ছবির দিয়েই দু’পয়শা আয়ের মুখ দেখছে। রাজকুমার ঈদের দিন থেকে সন্ধ্যার প্রায় সব শো হাউজফুল যাচ্ছে। ছুটি কাটিয়ে দর্শক ঢাকায় ফিরলে আমাদের হলে রাজকুমারের আরও দর্শক বাড়বে।

ঈদে মুক্তি পাওয়া অন্য আট সিনেমার মধ্যে মাল্টিপ্লেক্সে সবচেয়ে বেশি শো পেয়েছে মিশুক মনি পরিচালিত ‘দেয়ালের দেশ’। সিনেপ্লেক্সের সব শাখা মিলিয়ে প্রতিদিন এর ১৭টি শো প্রদর্শন শুরু করে।

সিনেপ্লেক্সে কর্তৃপক্ষ জানান, ‘টিজার ও ট্রেলারে দেয়ালের দেশের হাইপ ভালো দেখেই বেশি শো দেওয়া হয়। সিনেপ্লেক্সের ঢাকার শাখাগুলোতে এখন অব্দি সিনেমাটি হাউজফুল যাচ্ছিল। এখন দর্শক কম থাকায় শো কমানো হয়েছে। দেখা যাক ছবিটি এই সপ্তাহে কতটা দর্শক ধরে রাখতে পারে।’

ছবিটিতে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ ও বুবলী। দেশজুড়ে এটি ১৩টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে।

মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ‘ওমর’ ছবিটিও এগিয়ে রয়েছে স্টার সিনেপ্লেক্সে। এই ছবিটি ঈদের ছবি হিসেবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২১টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। সিঙ্গেল স্ক্রিনে খুব একটা সুবিধা না করতে পারলেও মাল্টিপ্লেক্সে অগ্রিম টিকেট বিক্রিতে রাজকুমারের পরেই ওমরের অবস্থান বলে জানিয়েছেন সিনেপ্লেক্সের জ্যৈষ্ঠ ব্যবস্থাপক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, ঈদ ও বৈশাখ উপলক্ষে লম্বা ছুটি পেয়েছে মানুষ। ফলে ঈদের সিনেমা দেখতে দর্শকদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সিনেপ্লেক্সে অগ্রিম টিকেট বিক্রিতে রাজকুমারের পরই ওমর ছবিটি রয়েছে। আগামীতে এভাবে চললে শো বাড়ানো হবে। ওমর সিনেমায় মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ, শহিদুজ্জামান সেলিম, নাসির উদ্দিন খান ও দর্শনা বণিক।

ঈদে মুক্তির ১১টি সিনেমার মধ্যে কাজলরেখাও রয়েছে। গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘কাজলরেখা’ লোকসংস্কৃতির ঐতিহ্যের হিরণ্ময় স্মারক ‘মৈমনসিংহ গীতিকা’ অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে। কেবল দেশের মাল্টিপ্লেক্সগুলোতে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে সবচেয়ে বেশি মূল্যের ভিআইপি হলে চলছে ‘কাজলরেখা’। তারপরও দর্শকদের ভিড় খারাপ না। ঈদের এই সময়টাতে সব ছবিই দর্শক পাবে। কাজলরেখার অনেক শো হাউজফুল গিয়েছে।

গিয়াস উদ্দিন সেলিম জানিয়েছেন, ‘এই ছবি যারা দেখছেন তারা রূপকথার যে গল্প শুনে আসছিলেন তার সঙ্গে কানেক্ট করতে পারছেন। যারা দেখছেন তারা সবাই তৃপ্ত হয়ে হল থেকে বের হচ্ছেন। এখন পর্যন্ত সিনেমাটির কোনো নেতিবাচক রিভিউ পাইনি। একজন নির্মাতা হিসেবে এটাই আমার স্বার্থকতা। আমার বিশ্বাস ধীরে ধীরে কাজলরেখার দর্শক বাড়বে। বাড়বে হলও।’

সিনেমাটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন মন্দিরা চক্রবর্তী, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা, সাদিয়া আয়মান, শরীফুল রাজ, খায়রুল বাসার, গাউসুল আলম শাওনসহ আরও অনেকে।

এদিকে ঈদে মুক্তির তৃতীয় দিন স্টার সিনেপ্লেক্সে থেকে দর্শক খরায় নামিয়ে দেওয়া হয়েছে দু’টি সিনেমা ‘আহারে জীবন’ ও ‘গ্রিন কার্ড’। একই হল থেকে ঈদের পঞ্চম দিন নামানো হয়েছে ‘মেঘনা কন্যা’ নামের আরও একটি সিনেমা। স্টার সিনেপ্লেক্সে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে এই তথ্য।

জসিম উদ্দিন জাকির নির্মিত ‘মায়া: দ্য লাভ’ সিনেমাটি ঈদে নয়টি হলে মুক্তি পায়। শাকিব খানের দাপটে সিঙ্গেল স্ক্রিনে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। মাল্টিপ্লেক্স হিসেবে কেবল যমুনা ব্লকবাস্টারে চলছে। সেখান থেকে জানানো হয়েছে ছবিটি অ্যাভারেজ দর্শক পাচ্ছে। একই কথা জানানো হয়েছে চিত্রনায়ক জায়েদ খান অভিনীত সোনার ছবির ক্ষেত্রেও। ঈদে সাতটি সাতটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিল জাহিদ হোসেন পরিচালিত এই ছবিটি। ব্লকবাস্টারের বাইরে অন্য হলগুলো থেকে ছবিটির খবর নেওয়া সম্ভব হয়নি। এবারের ঈদে মুক্তি পাওয়া ভৌতিক গল্পের সিনেমা ‘মোনা: জ্বীন ২’ পেয়েছে ছয়টি হল। জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত এই ছবি পরিচালনা করেছেন কামরুজ্জামান রোমান। সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে শো কম পেলেও অ্যাভারেজ দর্শক পাচ্ছে ‘জ্বীন ২’।

এদিকে রাজকুমারের পর সিঙ্গেল স্ক্রিনের পয়সা উসুল সিনেমা দাবি করা হচ্ছে আদর আজাদ ও পূজা চেরী অভিনীত ‘লিপস্টিক’ মাত্র ৭টি সিনেমা হলে মুক্তি পেলেও দর্শকদের কাছে দারুণ প্রশংসিত হচ্ছে। ফলে দ্বিতীয় সপ্তাহে সিনেমাটি হল মালিক সমিতির পক্ষ থেকেও নেওয়ার আগ্রহের কথা জানিয়েছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৭:৪৬ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

ajkerograbani.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
সম্পাদক ও প্রকাশক
মুহা: সালাহউদ্দিন মিয়া
সম্পাদকীয় কার্যালয়

২ শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সরণি, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭। সম্পাদক কর্তৃক তুহিন প্রেস, ২১৯/২ ফকিরাপুল (১ম গলি), মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত।

ফোন : ০১৯১৪৭৫৩৮৬৮

E-mail: [email protected]