• শিরোনাম



    UTTARA UNITED COLLEGE

    #UUC_2020

    Posted by Uttara United College on Friday, 29 May 2020

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    রাস্তার কুকুররাও আমাদের ঘৃণা করে : শাফাতের মা

    অনলাইন ডেস্ক | ১৩ মে ২০১৭ | ৯:৪১ অপরাহ্ণ

    রাস্তার কুকুররাও আমাদের ঘৃণা করে :  শাফাতের মা

    ধর্ষক শাফাতের সঙ্গে তার মা নিলুফার জেসমিন

    বনানীতে ধর্ষনের ঘটনা নিয়ে মুখ খুলেছেন ধনীর দুলাল শাফাতের মা নিলুফার জেসমিন। তিনি দাবী করেন শাফাতের বাবা ছেলেকে অনেক অসৎ কাজ করতে উৎসাহ দিয়েছেন । তার লাই পেয়েই ছেলের আজকে এই দশা হয়েছে। তিনি নির্যাতিত দুই মেয়েদের সাথে যা হয়েছে, তা সত্য হলে এটি অন্যায় বলেও অভিমত দেন।
    প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে বার বার ডুকরে কাদছিলেন শাফাতের মা। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, এত টাকা আর প্রাচুর্য্য চারিদিকে। কিন্তু তাঁর মনে কোনো শান্তি নেই। রাস্তার কুকুর থেকে শুরু করে সমাজের সকলেই এখন তাদের ঘৃণা করে। সারা বাংলাদেশে তাঁদের বিরুদ্ধে এত প্রতিবাদে তিনি অত্যন্ত বিব্রত ও ভীত বোধ করছেন। গত কয়েকদিন ধরে তিনি তার নিজের বাসাতেও থাকতে পারছেন না বলে জানয়েছেন। তিনি মনে করছেন তার ছেলে আর কোনোদিনও ঘরে ফিরতে পারবে না।
    শাফাতের এই অধঃপতন কবে থেকে শুরু এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, “শাফাত তার স্কুল অবস্থা থেকেই নানা মেয়ে নিয়ে পার্টিতে যেতো, বাসায় নিয়ে আসতো। আমি অনেকবার মানা করলেও তার বাবা সব সময় আমাকে বলতো এই বয়সে এমন করেই। এমনকি শাফাত যখন আমার বৌমা পিয়াসাকে বিয়ে করে ঘরে এনেছিলো তখন সেটি ভাঙ্গার জন্য শাফাতের বাবাই সব রকমের চেষ্টা করেছিলো। পিয়াসা থাকার সময় আমার ছেলেটা অনেক ভালো ছিলো। পিয়াসাকে ডিভোর্স দেবার পেছনে সকল কলকাঠি নেড়েছে তাঁর স্বামী” তিনি জানান এই ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত তার ছিল না। এটা তিনি পছন্দ করেননি।
    নাঈম আশরাফ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “এই ছেলেটা সারাক্ষন আমার বাসায় পড়ে থাকতো। শাফাতের কাছ থেকে টাকা নিয়ে সে সিগারেট পর্যন্ত খেতো। এই নাঈমকে শাফাতের বাবাই ঘরে নিয়ে আসে ছেলের সাথে থাকার জন্য। আমি কতবার বলেছি একে বাসায় না রাখার জন্য । কিন্তু আমাকে ধমকে চুপ করিয়ে দেয়া হোতো”
    তিনি আরো বলেন, যে এখন তার ছোটো ছেলে ইফাতের জন্যও তার অনেক ভয় হয় এই ভেবে যে, এটিও বড়টার মত নষ্ট হয়ে যায় কিনা।
    ছেলের এমন অপরাধের শাস্তি চান কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, অন্যায় করে থাকলে শাস্তি হোক, এটাই আমি চাই। কিছু দিন জেলে থাকলে টাকার গরম কিছুটা কমবে বলে মনে করেন এই মা।


    Facebook Comments


    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4344