• শিরোনাম



    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...


    করোনার কারণে…

    শেখ কনক | ৩০ মে ২০২০ | ৯:০০ অপরাহ্ণ

    করোনার কারণে…

    রংধনুর সাত রংয়ে সেঁজেছে আকাশ। মেঘমুক্ত আকাশে স্পষ্ট ধ্রুব তারা, সপ্তর্ষিমণ্ডলেরা। মানব তারকাদের ভিড় ঠেলে মুক্ত আকাশে মিট মিট করছে একের পর এক ঝাক বেঁধে তারার দল। মুক্ত বাতাসে এবার মন খুলে মনের কখা কইতে পারেন তাদের সাথে।


    গাড়িঘোড়া কলকারখানার কালো ধোওয়ার থেকে মুক্ত আকাশে বায়ু দুষনের স্তর এতটাই কমেছে যে, বহুবছর পরে ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের জলান্ধর শহরের সান্ত বালবির সিং বাড়ির উঠানে দাড়িয়ে ১২৫ মাইল দূরের শুভ্রতুষারাবৃত হেমালয়ের চুড়া দেখে আনন্দে নিত্যরত। আনন্দে আত্মহারা বশ্চিম বঙ্গের শিলগুড়ির বাসিন্দা হরভজন তার বাড়ির ছাদে দাড়িয়ে ১০০ কিলোমিটার দুরত্বে পৃথিবীর তৃতীয় সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ কাঞ্চনজঙ্ঘার চোখ ধাধানো সৌন্দর্য উপভোগ করে। নয়ন জুড়াচ্ছেন বাংলাদেশের উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের অধিবাসীরা বরফ ঢাকা পৃথিবীর সর্বোচ্চ শ্বেতশুভ্র পর্বতশৃঙ্গ হিমালয়ের চুড়া দেখে। দিনে দিনে যা কেবল রুপকথার গল্পে পরিনত হতে বসেছিল।


    সমুদ্রের পানি হয়েছে নির্মল নীল। থাইল্যান্ডের স্বৈকতে বেড়াতে এসেছে দুর্লভ প্রজাতির কচ্ছপ। ভেনিসের স্বচ্ছ হয়ে যাওয়া প্রান্ত ক্যানেলে আনন্দে নেচে নেচে ফিরতে শুরু করেছে ডলফিন জেলিফিসেরা।

    বায়ুমণ্ডলের দূষণ কমে সজীব হচ্ছে পৃথিবী। প্রকৃতি ছেয়ে গেছে সবুজে সবুজে। নানা রংয়ের ফুলে ফুলে সাজিয়েছে তার ডালা। লোকালয়ে মিলছে জানা অজানা বিরল প্রজাতির নানা রংয়ের পাঁখি আর কীট পতঙ্গের। প্রকৃতি ফিরেছে তার নিজস্ব রুপে।

    কলরোডা বোস্তার বিশ্ব বিদ্যালয়ের গবেষকেরা জানিয়েছেন, বায়ু দুষণের ফলে ওজন স্তরে যে ফুটোর সৃষ্টি হয়েছিল তা ধীরে ধীরে মেরামত হচ্ছে। এর ফলে পৃথিবীর পরিবেশ, জীবজগত বড়সড় বিপর্যয় থেকে রক্ষা পাবে।

    অনেকে মনে করেন, করোনা ভাইরাস প্রকৃতির প্রতিশোধ। তবে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় জীববিজ্ঞানী টমাস লাভজয় তা মনে করেন না। তিনি মনে করেন, এটা আমাদেরই কৃতকর্মের ফসল। আমরাই এ দুর্গতি ডেকে এনেছি।প্রকৃতিতে অনধিকার প্রবেশের ফলে মহামারির এ বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে। ভবিশ্যত পৃথিবীর জন্যে আমাদের প্রাকৃতিক বিশ্বের প্রতি আর সম্মান দেখাবার সময় এসেছে।

    বিশ্বের সেরা ভাইরোলজিস্ট চীনের শি জেহেলি এবং আমেরিকার বিখ্যাত গবেষণাগার ‘ ইকো হেলথ অ্যালায়েন্স’ নামক রিসার্চ সংগঠনের প্রেসিডেন্ট পিটার ডেস জ্যাক দু’জনেই একমত হয়ে বলেছেন, The Novel 2019 Coronavirus is nature punishing the human race for keeping uncivilised living habits (Sunday Times: April 19).
    – মানুষ যেহেতু অসভ্য জীবন যাপন করছে সে জন্য এটা প্রকৃতির শাস্তি।

    আহা! আমরা কতকিছুই না করেছি যান্ত্রিক সভ্যতা আর গোষ্ঠীস্বার্থে বিপন্ন এ পৃথিবীকে তার স্বরুপে ফিরিয়ে দিতে! রাজা মহারাজাদের দেশে দেশে ‘জলবায়ু সম্মেলন’ ইত্যাদি নামে মিলিয়ন বিলিয়ন ডলার ব্যায়ে সভা সমাবেশ করে। রঙ্গিন পানির ফোয়ারায় স্বচ্ছ গ্লেসের টুন টুন আওয়াজে মিলিয়ে গেছে সব। কাজের কাজ কিছুই হয়নি। দমবন্ধ হয়ে আসা পৃথীবি কেবল অসহায় নয়নে ফ্যাল ফ্যাল তাকিয়ে রয়।

    হয়তো করোনা একদিন বিদায় নেবে নয়তো এইচ আইভি, ডেঙ্গু, সার্স, মার্সের মত পৃথিবীর মানুষ করোনাকেও মেনে মানিয়ে চলতে শুরু করবে। ঘূর্ণয়মান এই পৃথিবীতে কোনকিছুই স্থির নয়। স্থির থাকতে পারে না মানুষের জীবন চলার গতিও অথবা গতির অপর নামই জীবন বা জীবনের অপর নাম গতি। জীবন কে বাঁচিয়ে রাখতে হলে জীব জগত তথা পৃথিবীকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। বিশুদ্ধবায়ু, জীবজন্তু, গাছপালা, নদি সমুদ্র এসবই পৃথিবী বেঁচে থাকা অপরিহার্য উপাদান। বিশেষজ্ঞরা যেমনটি বলছিলেন, কেবল করোনার কারণে নয়, পৃথিবীকে বাঁচাতে সারা পৃথিবীর রাষ্ট্রগুলোকে প্রতি বছরের কিছুদিনের জন্য লকডাউনে থাকতে হবে। প্রিয় পৃথিবীর জন্য বিষয়টা অবশ্যই ভাবতে হবে।

    Facebook Comments

    কোন এলাকার খবর দেখতে চান...

    webnewsdesign.com

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে আজকের অগ্রবাণী


  • Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/ajkerogr/public_html/wp-includes/functions.php on line 4344